অনলাইন ক্লাসের সামর্থ্য নেই, রাস্তাকেই স্লেট বানিয়ে লেখাপড়া করছে পথশিশুরা

গাড়ি চলাচলের জন্যই সাধারণত রাস্তা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু কখনও শুনেছেন সেই রাস্তা ব্যবহৃত হচ্ছে পড়াশোনা শেখার কাজে? শুনতে অবাক লাগলেও ভারতের মধ্যপ্রদেশের বেতুল জেলার সিমোরি গ্রামে গেলে দেখা যাবে, রাস্তার মধ্যেই চক দিয়ে লিখে চলেছে খুদে পথশিশুরা। কেউ লিখছে নামতা, তো কেউ আবার যোগ-বিয়োগের অঙ্ক করছে। কোথাও আবার দেখা যাবে পরপর লেখা ইংরেজি অক্ষর।

করোনার কারণে দেশজু়ড়ে এখনও পর্যন্ত বন্ধ স্কুল-কলেজ। অনলাইনেই চলছে সব ক্লাস। কিন্তু এখনো দেশের অধিকাংশ মানুষই দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করেন। সে কারণে সেই সমস্ত পরিবারের ছেলেমেয়েদের অনলাইন ক্লাস করার জন্য কম্পিউটার বা ফোন কেনার সামর্থ্য নেই। কিন্তু সেজন্য যাতে তাদের পড়াশোনায় ক্ষতি না হয়, সে কথা ভেবেই সিমোরি গ্রামে শুরু হয়েছে কমিউনিটি ক্লাস। কার্যত খেলার ছলেই রাস্তার উপরে চলছে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা। সেখানেই তারা চক দিয়ে নামতা, অংক, মাস-দিনের নাম, সংস্কৃত শব্দ, ফল-ফুলের নাম লিখে চলেছে। তাদের সাহায্য করছে স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এছাড়াও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন স্থানীয় কয়েকজন শিক্ষকও।

এই প্রসঙ্গে শৈলেন্দ্র বিহারিয়া নামে এক শিক্ষক জানান, ‘এই রাস্তায় আগে ছোট ছেলেমেয়েরা খেলাধুলা করত। কেউ খেলত, কেউ সাইকেল চালাত। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে আমরা রাস্তাতেই ওই খুদেদের পড়াশোনার ব্যবস্থা করেছি।’

স্থানীয় এনজিওর সদস্য মমতা গোহার বলেন, ‘আমরা ওই ছোট শিশুদের বিনামূল্যে সাদা এবং রঙিন চক দিয়েছি। এই অভিনব পদ্ধতি গোটা এলাকাতেই কিন্তু বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।’

এদিকে, এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই অনেকেই অভিনব এই পদ্ধতির প্রশংসায় পঞ্চমুখ। সোশ্যাল মিডিয়াতেও খবরটি ভাইরাল। দেশজুড়ে নেটিজেনরাও উদ্যোক্তাদের এই প্রয়াসকে সমর্থন জানিয়ছেন।