মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলিবর্ষণ: ব্যাপক ধরপাকড়

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে রাজপথে নামা বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। দেশটির বেশ কয়েকটি শহরের রাস্তায় সেনাবাহিনীর সশস্ত্র গাড়ি টহল দিচ্ছে। দেশটির বেশির ভাগ জায়গায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সেনা অভ্যুত্থানের পরপরই মিয়ানমারে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এ নিয়ে দ্বিতীয় দফায় ইন্টারনেট বন্ধ করা হলো দেশটিতে।

জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা অভিযোগ করেছেন, সেনাবাহিনী ‘যুদ্ধ ঘোষণা’ করেছে। মিয়ানমারবিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ কর্মকর্তা টম অ্যান্ড্রুজ বলেন, জান্তা সরকার বেপরোয়া আচরণ করছে। এ জন্য তাদের জবাবদিহি করতে হবে।

মিয়ানমারের টেলিকম অপারেটররা জানান, স্থানীয় সময় রোববার রাত ১টা থেকে আজ সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত তাদের ইন্টারনেট সেবা বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। গার্ডিয়ানের খবরে জানা যায়, স্থানীয় সময় শনিবার রাতে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। ২৪ ঘণ্টা পর তা আবার সচল হয়।

বিক্ষোভকারী ও বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতা থেকে বিরত থাকতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কানাডা ও যুক্তরাজ্য।