আইসিসির সব সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড

বেশ কিছুদিন আগেই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) নিশ্চিত করেছিল যে ২০২৩-৩১ সাল পর্যন্ত টুর্নামেন্টগুলো বিডিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বণ্টন করা হবে। যেখানে স্বাগতিক হওয়ার জন্য বিড করতে পারবে যেকোনো দেশ। তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) কারণে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে যাচ্ছে আইসিসি।

ক্রিকবাজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২৩-৩১ সাল পর্যন্ত আইসিসি ৮টি টুর্নামেন্ট করতে চাইলেও ভারতের বিরোধিতায় ৬টি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এমন সিদ্ধান্তে বিসিসিআইকে সমর্থন জানাচ্ছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

২০১৬ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত আইসিসির বেশির ভাগ টুর্নামেন্ট নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নিয়েছে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। যেখানে বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের মতো দেশগুলোতে আয়োজন হয়নি বড় কোনো টুর্নামেন্ট।

২০২৩-২০৩১ সালের মধ্যে আইসিসি ছেলেদের ৮টি, মেয়েদের ৮টি ও ৮টি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ আয়োজন করবে। আইসিসির এই ২৪টি টুর্নামেন্টের স্বাগতিক নির্বাচন হবে বিডিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে। আর তাতেই বিরোধিতা করেছে তিন মোড়ল। যদিও এ নিয়ে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখছে বিসিসিআই। অনেকের ধারণা, প্রত্যেকটি দেশ বিডিং করলে তিন মোড়লের টুর্নামেন্ট আয়োজনের সংখ্যা কমে যাবে।

সেই ধারণা থেকেই আইসিসির বিডিং প্রক্রিয়া নিয়ে বিরোধিতা করে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের মতো দেশগুলো। যদিও ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রন সংস্থার এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছিল অন্যান্য দেশ। কারণ এই প্রক্রিয়ার মাঝে দিয়ে যেতে পারলে আর্থিকভাবে লাভবান হতো দুর্বল দলগুলো।

আইসিসি এই বিষয়ে এখনও কোনো কিছু না বললেও ধারণা করা হচ্ছে বিডিং প্রক্রিয়া থেকে সরে আসতে যাচ্ছে তারা। যদিও তাঁদের পরিকল্পনা ছিল এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমেরিকা ও আফ্রিকার মতো দেশগুলোকে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মতো দেশের পরিপূরক তৈরি করা। তবে সংযত কারণেই আইসিসির এই পরিকল্পনা সহসায় বাস্তবায়ন হচ্ছে না।

সূত্রঃ ক্রিকফ্রেঞ্জি