টি-টোয়েন্টিতে বড়-ছোট দল বলতে কিছু নেই: মাহমুদউল্লাহ

আগামীকাল রবিবার হ্যামিল্টনে শুরু হবে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ওয়ানডে সিরিজে ধবলধোলাই হওয়া টাইগাররা এই সিরিজেও শুরু করবে ‘আন্ডারডগ’ হিসেবে। অবশ্য টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানিয়েছেন, ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম এই ফরম্যাটে বড় দল-ছোট দল হিসেবে কিছু নেই।

টেস্ট ক্রিকেটের মতো ২০ ওভারের ক্রিকেটেও বাংলাদেশের পারফরম্যান্স খুব একটা সুবিধার না। এর মধ্যে দলের সঙ্গে থাকছেন না তামিম ইকবাল-সাকিব আল হাসানের মতো নিয়মিত ক্রিকেটাররা। কিউই কন্ডিশন আর র‍্যাংকিংয়ে দুই দলের পার্থক্যের কারণে তাই স্বাভাবিকভাবেই বড় ধরনের পরীক্ষা দিতে চলেছে বাংলাদেশ। তবে টাইগার অধিনায়কের বিশ্বাস দু-একজন ক্রিকেটার জ্বলে উঠলেই ম্যাচের ফলাফল যেকোন কিছু হতে পারে।

মাহমুদউল্লাহ বলেন, টি-টোয়েন্টি এমন এক ফরম্যাট যেখানে বড় দল ছোট দল বলতে কিছু নেই। র‍্যাংকিংয়ের এক নম্বর দল হোক বা নয়-দশ নম্বর দল হোক, নির্দিষ্ট দিনে যদি কোনো দল ভালো পারফর্ম করে, এক-দুইজন খেলোয়াড় ভালো পারফর্ম করে, দল হিসেবে যদি ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং ঠিকমত করতে পারি তাহলে যেকোনো দলকে হারাতে পারব। এটা আমাদের বিশ্বাস। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটটাই এমন।

ওয়ানডে সিরিজে যাচ্ছেতাই খেলেছে বাংলাদেশ। হতশ্রী ব্যাটিং ছাপিয়ে হাস্যকর ফিল্ডিং- হোয়াইটওয়াশের কারণ এটাই। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজেদের ভুল সংশোধন করতে চান মাহমুদউল্লাহ। ফিল্ডিংয়ে ভালো করার আশ্বাস দিয়ে এই ক্রিকেটার জানিয়েছেন, ছোট-বড় সকল সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে পার্থক্য গড়া সম্ভব।

মাহমুদউল্লাহ আরও বলেন, এটা এক দিনের খেলা। যে ঐদিন ভালো করবে তাদের পক্ষেই ভালো করা সম্ভব। এসব কন্ডিশনে গেইম এওয়ারনেস খুব গুরুত্বপূর্ণ। সবসময় বাতাস থাকবে, অনেক সময় উঁচু বা ফ্ল্যাট ক্যাচগুলোর জন্য প্রস্তুত থাকা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বল এখানে তাড়াতাড়ি ট্রাভেল করে। প্রত্যেক ফিল্ডার যদি সবসময় সতর্ক থাকে, সুযোগ এলে আমাদের কাজে লাগাতে হবে- সেটা আমি হই বা যেই হোক। এসব ছোট ছোট সুযোগ যদি কাজে লাগাতে পারি তাহলেই পার্থক্য গড়া সম্ভব।

৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সেডন পার্কে। বাংলাদেশ সময় ম্যাচটি শুরু হবে সকাল ৭ টায়। সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ভিন্ন দুই মাঠে। দ্বিতীয় ম্যাচ নেপিয়ারে গড়ানোর পর সিরিজের সর্বশেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে অকল্যান্ডে। শেষ দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২ টায়।