তিশার সাথে মিউজিক ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন সুজন

ক্রিকেটের মানুষেরা এমনিতেই তারকাখ্যাতি পেয়ে যান। তাদের খ্যাতিকে তুলনা করা যেতে পারে অভিনয়শিল্পীদের খ্যাতির সাথে। কেমন হয়, যদি ক্রিকেটাররাই নেন অভিনেতার ভূমিকা! ক্রিকেট থেকে অভিনয়েও নাম লেখানোর দৃষ্টান্ত আছে বেশ কয়েকটি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য খালেদ মাহমুদ সুজন। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক তরুণ বয়সে একটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছিলেন। তার সাথে ছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রায়ই দেখা যায় সুজন-তিশার মিউজিক ভিডিওর ক্লিপ। এবার এ নিয়ে মুখ খুললেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।

সুজনকে মূলত অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন বিসিবির বিমানবন্দর সমন্বয়ক, ক্রিকেট সংগঠক ওয়াসিম খান; যিনি অভিনয়ের সাথে যুক্ত দীর্ঘদিন ধরে। অবশ্য একে প্রস্তাব না বলে জোরাজুরি হিসেবেও আখ্যায়িত করা যেতে পারে!

সুজন বলেন, ওয়াসিম ভাই, আমাদের ওয়াসিম খান, বললেন- চল, তোর আজকে একটা শুটিং আছে। সুন্দর সুন্দর শার্ট নে। আমি বললাম কীসের শুটিং? বুঝিনি প্রথমে। সুজন তো নাছোড়বান্দা! অভিনয় তিনি করবেনই না। নাছোড়বান্দা ছিলেন ওয়াসিমও। শেষপর্যন্ত সুজন আর ওয়াসিমের কথা ফেলতে পারেননি।

সুজন আরও বলেন, আমি অনেক বললাম- ওয়াসিম ভাই, এগুলো আমি বুঝব না, পারব না। উনি বললেন- কর। ঐ একটা করলাম। তখন আমার বয়স ছিল ২৫-২৬ এরকম। এখন চাইলেও আর অভিনয় করা হবে না, গানের অনেকগুলো শুট ছিল। এগুলো করা এখন কঠিন। তখন হয়ত ভালো লেগেছিল তাই করেছিলাম।

সুজন বলেন, আমি একজন ব্যাংকার ছিলাম। কমার্স নিয়ে পড়ালেখা করেছি। ছোটবেলার স্বপ্ন ছিল পাইলট হওয়ার। যদিও সেই অনুযায়ী পড়াশোনাই করিনি। ছেলেবেলার স্বপ্ন আরকি। হয়ত ব্যাংকে ট্যাংকে জব করতাম। আসলে ক্রিকেট ছাড়া কিছু চিন্তা করিনি এত। সুত্রঃ বিডিক্রিকটাইম