প্রখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ মওলানা ওয়াহিদুদ্দিন খান আর নেই

ভারতের প্রখ্যাত আলেম মাওলানা ওয়াহিদুদ্দিন খান আর নেই। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

গতকাল বুধবার (২১ এপ্রিল) দিবাগত রাতে দিল্লির অ্যাপোলো হাসাপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর।

তার মৃত্যুতে মুসলিম বিশ্বের অপূরণীয় এক ক্ষতি হলো। তিনি ছিলেন অসাধারণ এক ব্যক্তিত্ব। ইসলামি ইতিহাস, ঐতিহ্য ও দর্শন, জীবন ও জগৎ প্রগাঢ়ভাবে মন্থিত করে সুবর্ণ আহরণের ক্ষেত্রে তিনি ইবনে খালদুনের পর অদ্বিতীয় ব্যক্তিত্ব বলে অনেকে মনে করেন। যুদ্ধ নয় বরং শান্তি, হিংসা নয় বরং প্রেম, দ্বেষ নয় বরং মায়া এবং পরোপকারিতাই হলো জাতি ও ব্যক্তি জীবনে শিখরে ওঠার সোপান- সে কথাই মাওলানার সৃষ্ট সাহিত্যে অনুরণিত হয়েছে ক্ষণে-ক্ষণে ও বারংবার। ইসলাম সন্ত্রাস নয়, শান্তির ধর্ম- এ বিষয়টিকে তিনি প্রতিষ্ঠিত করেছেন শতধাধারায়। বিক্ষুব্ধ বিশ্বে শান্তির পায়রা উড়াতে তিনি প্রয়াস পেয়েছেন অক্লান্ত মেহনতে ও বর্ণনাতীত পরিশ্রমে।

তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে এক টুইট বার্তায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানান, মাওলানা ওয়াহিদুদ্দিন খানের আকস্মিক মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। তিনি ধর্মতত্ত্ব ও আধ্যাত্মিকতার বিষয়ে গভীর জ্ঞানের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তিনি সমাজসেবা এবং সামাজিক ক্ষমতায়নের বিষয়েও তিনি বেশ অনুরাগী ছিলেন। তাঁর পরিবার ও অসংখ্য শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা।

গত ১২ এপ্রিল কোভিড-১৯ টেস্ট পজিটিভ আসায় মাওলানাকে দিল্লির এ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ২১ এপ্রিল তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটে এবং আনুমানিক রাত ৯:৪৫- এ তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

দোয়া করি, আল্লাহ তাআলা তার সকল খেদমত কবুল করুন। তার ভুলত্রুটি ক্ষমা করুন। তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসের সুউচ্চ মাকামে অধিষ্ঠিত করুন। আমিন।