মার্কেট-শপিংমল খোলা রাখার দাবিতে বিক্ষোভ করছেন ব্যবসায়ীরা

সীমিত পরিসরে মার্কেট-শপিংমল খোলা রাখার দাবিতে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় দ্বিতীয় দিনের মতো সোমবার (৫ এপ্রিল) বিক্ষোভ করছেন ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা বলেন, রমজানের ঈদকে সামনে রেখে ব্যবসা করতে না পারলে পথে বসতে হবে তাদের। পুলিশ বাধা দিলেও বিক্ষোভ অব্যাহত রাখেন তারা। লকডাউন, দোকানপাট সব বন্ধ; কিন্তু নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে হাজির হন ব্যবসায়ীরা।

রাজধানীর নিউমার্কেট ও গাউছিয়াসহ বেশ কয়েকটি মার্কেটের সামনের রাস্তায় জড়ো হন তারা। দাবি একটাই, শিল্পকারখানা আর অফিস-আদালতের মতো স্বাস্থ্যবিধি বাধ্যতামূলক করে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য খুলে দেয়া হোক মার্কেট ও শপিংমল। গত রমজানে ব্যবসা করতে না পেরে ঋণের বোঝা এখনো চেপে আছে তাদের মাথায়।

দোকান মালিক সমিতির দাবি, এবারও রমজানে ব্যবসা করতে না পারলে কর্মচারীদের বেতন দেওয়াই দায় হয়ে যাবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দিনের কিছু সময়ের জন্য হলেও বেচাকেনার অনুমতি চান তারা। সকালে পুলিশ বাধা দিলেও তারা সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

রাজধানীর নিউমার্কেটের সামনে থাকা পুলিশ সদস্যরা বলেন, লকডাউন কার্যকরে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দোকানপাট বন্ধ আছে আর ব্যবসায়ীদের দাবিদাওয়া আমাদের ওপর মহলকে জানানো হয়েছে। পরবর্তীতে যে নির্দেশনা আসবে, সেভাবে কাজ করা হবে।

নিউমার্কেট জোনের এডিসি জানান, গতকাল রবিবার বিক্ষোভ থেকে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় অজ্ঞাত আসামি করে নিউমার্কেট থানায় মামলা হয়েছে।

এদিকে, সোমবার দুপুরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সচিবালয়ে বলেন, লকডাউন বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।