রাজধানীর শপিংমলগুলোতে ঈদের কেনাকাটার ধুম

কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে লকডাউনের মধ্যেই শপিংমল, বিপণিবিতান খোলার সুযোগ দিয়েছে সরকার, বাড়ানো হয়েছে সময়সীমাও। শপিংমল-দোকানপাট খোলার দ্বিতীয় দিনে যেন ঈদের কেনাকাটার ধুম লেগেছে। শিশু ও বয়স্ক মানুষের নিয়েই ভিড় ঠেলে দোকানে দোকানে যাচ্ছেন ক্রেতারা। কারণ জানতে চাইলে বলছেন, ফের লকডাউনের শঙ্কার কথা।

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় যেন তিল ধারণের ঠাঁই নেই। করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে অনেকেই পরিবার-পরিজন নিয়ে আসছেন কেনাকাটা করতে।

নিউমার্কেটে কেনাকাটা করতে আসা এক লোক বলেন, ‘শুধু আমি না আমার মতো এ রকম হাজার হাজার মানুষ এসেছে। সবার মধ্যে একটায় শঙ্কা, যদি লকডাউন আবার চলে আসে। যার কারণে আমরা কেনাকাটার জন্য বেশির ভাগ লোক ব্যস্ত হয়ে পড়েছি।

একদিকে গাদাগাদি ভিড় অন্যদিকে স্বাস্থ্যবিধি মানার নেই বালাই। জীবাণুনাশক টানেল আছে কিন্তু কাজ করছে না। আবার কোন মার্কেটের প্রবেশপথে তাও নেই। মাইকিং করে স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বলা হলেও মানছেন না ক্রেতারা।

এক দোকানদার বলেন, আমর নিজেরা সচেতনতা মেনে চলছিল। কাস্টমার আসলে কাস্টমারদের দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করি।