লকডাউনে ট্রলারে করে বাড়ি ফিরছে মানুষ, চলছে ফেরিও

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য ও স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করেই লকডাউনের প্রথম দিনেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক হাজার মানুষ ভোলায় এসেছে। লকডাউনের সময় পরিবার-পরিজনের সঙ্গে থাকার জন্যই ভোগান্তি উপেক্ষা করে এসব মানুষ ঘরে ফিরেছেন বলে দাবি তাদের।

আজ সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল থেকেই ট্রলারে যাত্রী আসা অব্যাহত রয়েছে। তবে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মানার তোয়াক্কা না করে গাদাগাদি করে এসেছেন এসব যাত্রীরা।

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে লকডাউনের কোনো নিয়মই মানা হচ্ছে না। সকাল থেকেই পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা কাজির হাট নৌরুটে ২০টি ফেরি চলাচল করছে। ঘাট এলাকায় নানা অজুহাতে মাস্ক ছাড়াই ঘোড়াফেরা করছে মানুষ। আজও বাসসহ ট্রাকেও ঘরে ফিরছে অনেকে।

সকালে লক্ষ্মীপুরের মজু চৌধুরীর ঘাট থেকে ধারণক্ষমতার দিগুণ যাত্রী নিয়ে ভোলার ইলিশা ঘাটে আসে বিআইডব্লিউটিসির সিট্রাক খিজির ৫ ও খিজির -৮। যাত্রী নামিয়ে সিট্রাক ২টি লক্ষ্মীপুরের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। ঢাকার সদরঘাট থেকে যাত্রী নিয়ে আসা লঞ্চ এমভি দোয়েল পাখি একই সময়ে ইলিশা আসে সহস্রাধিক যাত্রী নিয়ে। লঞ্চ সিট্রাকের পাশাপাশি মেঘনার ডেঞ্জার জোন পাড়ি দিয়ে ছোট ছোট জেলে ট্রলারে করে ঘরে ফেরা শত শত মানুষ আসতে দেখা গেছে।

ভোগান্তির পর ঝুঁকি নিতে বাধ্য হওয়ার কথা জানিয়েছে যাত্রীরা। আর যাত্রীদের নিরাপদে পৌঁছাতেই ট্রলারে পারাপারের কথা জানিয়েছেন চালক।