কালবৈশাখী ঝড়ে দৌলতদিয়া ঘাটের পন্টুন ছিঁড়ে পদ্মায় মাইক্রোবাস

ঈদকে সামনে রেখে বাড়ির উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ছে দক্ষিণাঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রী। হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে পন্টুনের তার ছিঁড়ে পদ্মা নদীতে ডুবে গেছে একটি মাইক্রোবাস।

আজ মঙ্গলবার (১১ মে) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে দৌলতদিয়ার ৫ নং ঘাটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাইক্রোবাসটিকে উদ্ধারে ডুবুরিরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ঘটনাস্থলে স্থানীয় প্রশাসন, বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএ এবং থানা ও নৌ-পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত রয়েছেন।

মাইক্রোবাসটিতে চালকসহ ঢাকাগামী কয়েকজন যাত্রী ছিলেন। নিখোঁজদের সন্ধানে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধারকাজ শুরু করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নদীতে হঠাৎ ঝড় শুরু হলে ঢেউয়ের আঘাতে পন্টুনের তার ছিঁড়ে যায়। এ সময় পন্টুনের ওপর থাকা কালো রংয়ের নোয়া মাইক্রোবাসটি ঝাঁকুনিতে নদীতে পড়ে যায়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, ডুবে যাওয়া মাইক্রোবাসটি উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি দল উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

দৌলতদিয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আবদুল মোন্নাফ বলেন, দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ঘাটে ভেড়ানো ইউটিলিটি (ছোট) ফেরি মাধবীলতায় ঢাকাগামী মাইক্রোবাসটি উঠতে যায়। এ সময় কালবৈশাখী ঝড় শুরু হলে ঘাট থেকে পন্টুনের ডান পাশের তার ছিঁড়ে যায়। একই সঙ্গে পন্টুনের বাম পাশের খুঁটি ভেঙে পন্টুনটি পদ্মা নদীতে চলে যায়। এ সময় মাইক্রোবাসটি ফেরিতে ওঠার চেষ্টা করছিল। কিন্তু তার আগেই মাইক্রোবাসটি পেছনের দিকে গেলে সঙ্গে সঙ্গে পন্টুন থেকে সেটি নদীতে চলে যায়।