তুর্কি বাহিনীর হামলায় পিকেকের শীর্ষ নেতা নিহতঃ এরদোয়ান

তুর্কি বাহিনীর হামলায় তুরস্ক সীমান্তসংলগ্ন ইরাকের মাখমুর জেলায় সিনিয়র পিকেকে গেরিলা সালমান বজকির ‘নিহত’ হয়েছে। সালমান বজকির পিকেকে গেরিলাদের সিনিয়র ম্যানেজার এবং ইরাকি পিকেকে গেরিলাদের মহাব্যবস্থাপক হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি পিকেকে গেরিলা ও তুরস্কে ডাক্তার হোসেন নামে পরিচিত ছিলেন। তুরস্ক সাধারণত নিষিদ্ধ ঘোষিত কোনো ব্যক্তি বা সন্ত্রাসী সংগঠনের ক্ষেত্রে ‘নিষ্ক্রিয়’ শব্দটি ব্যবহার করে। এর অর্থ নিষিদ্ধ কোনো ব্যক্তি নিহত, হত্যা বা আত্মসমর্পণকে বোঝায়।

গতকাল রবিবার (৬ জুলাই) এক টুইটে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান জানান, আমাদের ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্স অরগানাইজেশন (এমআইটি) সালমান বজকিরকে ‘নিষ্ক্রিয়’ করেছে।

টুইটে এরদোয়ান বলেন, তুরস্ক কোনো ‘বিশ্বাসঘাতক ও বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন’কে সহ্য করবে না এবং ইরাকের মাখমুর জেলাকে তাদের ‘ইনকিউবেটর’ হিসেবে ব্যবহার করতে দেবে না। আমরা সন্ত্রাসবাদের উৎস নির্মূলের অভিযান অব্যাহত রাখব।

দেশটির সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা এমআইটির শীর্ষ স্থানীয় ওয়ান্টেড তালিকায় বজকির অন্যতম ছিলেন। পিকেকের অন্যতম সংগঠক, প্রশিক্ষক এবং সদস্য নিয়োগের কাজ করতেন তিনি।