১১১ মিলিমিটার বৃষ্টিতে ডুবল ঢাকা

ভোর থেকেই রাজধানী ঢাকার আকাশ বেশ গুমোট ছিল। সকালে আকাশে মেঘের তর্জন-গর্জন শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পর শুরু হয় বৃষ্টি। তবে হালকা নয়, বেশ ভারী বৃষ্টিই হয়ে গেল। বাতাস বয়ে চলার পাশাপাশি বজ্রপাতও হয়। এতেই ঢাকায় ১১১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানা যায়।

আজ শনিবার (৫ জুন) বৃষ্টিতে মিরপুর, ধানমন্ডি, রামপুরা, বাড্ডা, উত্তরা, মগবাজার, পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় পানি জমে যায়। ফলে সৃষ্টি হয় যানজটের। এতে দুর্ভোগে পড়েন অফিসগামীরা। এ ছাড়া কর্মজীবী সাধারণ মানুষকে পড়তে উভয় সংকটে। প্লাবিত হওয়া সড়ক দিয়ে পারাপারের সময় অসহনীয় ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে এসব এলাকার বাসিন্দাদের। বৃষ্টির পানি ঢুকে পড়েছে বসতবাড়ি ও দোকানে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই বিকল এসব এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা। পানি নিষ্কাশনের তেমন কোনো ব্যবস্থা না থাকায় হালকা বৃষ্টিতে পুরো এলাকা জুড়ে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা।

আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুর রহমান খান জানিয়েছেন, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশ এলাকায় অবস্থান করছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু ইয়াঙ্গুন উপকূল পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে এবং তা আরো অগ্রসর হওয়ার জন্য আবহাওয়াগত পরিস্থিতি অনুকূলে রয়েছে।

এ অবস্থায় আগামীকাল রবিবার (৬ জুন) সকাল পর্যন্ত ঢাকা, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের কিছু কিছু এবং খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে সারাদেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।