ডিজিটাল হাট থেকে কোরবানির প্রথম গরু কিনলেন মন্ত্রী

দিন যত যাচ্ছে ততই ভয়ংকর হয়ে উঠছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। লকডাউনে মানুষের বেপরোয়া চলাচলের কারণে দেশে করোয়া সংক্রমণ বাড়ছে। এখনই যদি করোনার লাগাম ধরে না রাখা যায় তবে ভবিষ্যতে দেশটি বড় বিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনার কারণে এবারও অনলাইন ও ডিজিটাল মাধ্যমে কোরবানির পশু কেনা-বেচা হবে। সেই ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয়বারের মতো চালু হওয়া ডিজিটাল কোরবানির হাট থেকে প্রথম ক্রেতা হিসেবে গরু কিনেছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

আজ রবিবার (৪ জুলাই) ভার্চ্যুয়াল এক সভার মাধ্যমে পশুর ডিজিটাল হাটের উদ্বোধন শেষে তিনি পশু ক্রয় করেন। কোরবানির পশুর ডিজিটাল হাটের উদ্বোধন অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি মন্ত্রীকে গরু কিনতে কারিগরি বিষয়ে সহযোগিতা করেন।

মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, আজ ডিএনসিসির ডিজিটাল এই হাট উদ্বোধনের পর সবাইকে ডিজিটাল হাট থেকে গরু কিনতে উৎসাহ করার জন্য আমি এই গরু কিনলাম।

এসময় অনলাইনে দেখা যায়, মন্ত্রীর কেনা গরুটির দাম ১ লাখ ৪৮ হাজার ৭৫০ টাকা। গরুটি ৪ দাঁতের ও বাদামি রংয়ের এবং এর ওজন ৩৫০ কেজি। রাজধানীর পার্শ্ববর্তী নারায়ণগঞ্জ থেকে বিক্রি হয়েছে গরুটি।

জানা গেছে, ডিজিটাল কোরবানির হাট বসানোর জন্য ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি শেষ করেছে ডিএনসিসি। এ ব্যাপারে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) ও বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএফএ) সঙ্গে চুক্তিও হয়েছে। এর আগে গতবছরও করোনার জন্য ডিএনসিসিতে কোরবানির পশুর ডিজিটাল হাট বসেছিল।