পুলিশকে মারধর, আ.লীগ নেতাসহ আটক ৫

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার বারুহাস বাজারে সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে অনুমোদহীনভাবে কোরবানির পশুর হাট বসাতে বাধা দেওয়ায় পুলিশকে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বারুহাস ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানাসহ পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফজলে আশিক।

এ ঘটনার সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। পরে সরকারি কাজে বাধা প্রদান ও পুলিশকে মারধর করার অপরাধে শুক্রবার দিবাগত রাতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানাসহ পাঁচজনকে আটক করেছে তাড়াশ থানা পুলিশ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, নুরনবী নামে পুলিশের এক এসআইয়ের সঙ্গে কয়েকজন ব্যক্তি তর্কাতর্কি করছে। এক পর্যায়ে ধাক্কা দিয়ে তাকে পশুর হাট থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করছেন।

ওসি ফজলে আশিক জানান, বারুহাস হাটের ইজারাদার ও ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা শুক্রবার সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বারুহাস বাজার এলাকায় অনুমোদনহীন কোরবানির পশুর হাট বসান। এতে পুলিশ বাধা দিলে হাটের ইজারাদার মাসুদ রানা, তার চার সহযোগী ঝন্টু, রাসেল, আব্দুল হান্নান ও আবু হাসনাত বাবুসহ অজ্ঞাতরা পুলিশের ওপর হামলা চালান ও মারধর করেন। এ অপরাধে তাড়াশ থানা পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেন।

ওসি আরও বলেন, অনুমোদনহীন অবৈধ হাটে পুলিশ তাদের পেশাগত কাজে গেলে সরকারি কাজে বাধা দেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে উপ-পরিদর্শক সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস বাদী হয়ে আটজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়ের করেছেন। সেই অনুযায়ী তাদের গ্রেপ্তার করে শনিবার সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।