বার্সেলোনার অফিশিয়াল সমর্থকের স্বীকৃতি পেলো বাংলাবার্সা

ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা, সাধারনভাবে বার্সেলোনা এবং বার্সা, নামেও পরিচিত, একটি পেশাদার ফুটবল ক্লাব। প্রথম বাংলাদেশি বার্সা ফ্যান ক্লাব হিসেবে কাতালান ক্লাব এফসি বার্সেলোনার আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেল ফেসবুকভিত্তিক সমর্থন গোষ্ঠী ‘এফসি বার্সেলোনা লাভার্স ক্লাব বাংলাদেশ’ এর অধীনে প্রতিষ্ঠিত ‘বাংলাবার্সা’।

দীর্ঘ অপেক্ষা, ক্লান্তিকর এক যাত্রা শেষ হয় গত বৃহস্পতিবার, ৮ জুলাই। বিশ্বজুড়ে ১৯টি পেনইয়াকে ‘এফসিবি ওয়ার্ল্ড পেনইয়াস ফেডারেশন’ এর পক্ষ থেকে স্বীকৃতি দেওয়া হয় সেদিন। আর তাতেই ইতিহাস গড়ে ‘পেনইয়া ব্লাউগ্রানা বাংলাবার্সা ডি ঢাকা’, সংক্ষেপে ‘বাংলাবার্সা’, প্রথম বাংলাদেশি বার্সা ফ্যানক্লাব হিসেবে বার্সেলোনার পক্ষ থেকে স্বীকৃতি পেয়ে।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, স্বীকৃতির বিষয়ে আনুষ্ঠানিক দৌড়ঝাঁপ শুরু হয় ২০১৮ থেকে। ‘পেনইয়া ব্লাউগ্রানা বাংলাবার্সা ডি ঢাকা’ প্রায় এক দশক দীর্ঘ একটা স্বপ্ন, একটা সংগ্রাম, যার শুরুটা হয়েছিল এফসি বার্সেলোনা লাভার্স ক্লাব নামের একটা ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে। গ্রুপটার শুরু হয়েছিল দেশজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সব ‘Culé (কুলে)’ বা বার্সাভক্তদের এক ছাতার নিচে আনার লক্ষ্য নিয়ে। ক্লাব হিসেবে এফসি বার্সেলোনার‌ মূল্যবোধগুলো ধারণ করে, নিজেদের ভেতর পারস্পরিক সহনশীলতা, অন্যান্য ক্লাব, তার‌ খেলোয়াড় ও সমর্থকদের প্রতি শ্রদ্ধার জায়গাটি বজায় রেখেও যে প্রিয় ক্লাবকে সমর্থন যুগিয়ে যাওয়া সম্ভব। গত ১০ বছরে সেটিই প্রচার করেছে এবং করে দেখিয়েছে এফসি বার্সেলোনা লাভার্স ক্লাব বাংলাদেশ আর সে প্রচেষ্টারই আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে কাতালান ক্লাব।

বাংলাবার্সার সহ-সভাপতি রাশিক ইসলাম বলেন, দীর্ঘ সময় ও গভীর উৎসর্জনের মাধ্যমে আমাদের ছোট্ট এই কমিউনিটিটি অবশেষে প্রথম বাংলাদেশি বার্সা ফ্যান ক্লাব হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেয়েছে। যারা কখনো হাল না ছেড়ে এই দীর্ঘ আমলাতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার সাথে জড়িত থেকে এই স্বীকৃতি পেতে সাহায্য করেছেন তাদের সকলকে আমার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ, একই সাথে সকল বাংলাদেশি বার্সা সমর্থকদেরকে অভিনন্দন।