ভারতের বিপক্ষেও ‘দ্বিতীয় সারির’ দল নামাবে শ্রীলঙ্কা

ভারতের দুটি মূল জাতীয় দল দুইটি ভিন্ন দেশে সফর করছে। ইংল্যান্ডে আছে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন মূল দল। আর শ্রীলঙ্কা সফরে গেছে শিখর ধাওয়ানের নেতৃত্বাধীন দল। যেটাকে ‘দ্বিতীয় সারির’ বলা হচ্ছে। ইংল্যান্ড সফরের আগেই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের প্রস্তাবিত চুক্তিতে সাক্ষর করার কথা ছিল কুশল পেরেরাদের। তবে চুক্তিতে প্রাপ্য টাকায় ক্রিকেটাররা সন্তুষ্ট নয়।

কেন্দ্রীয় চুক্তি নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে লঙ্কান ক্রিকেটারদের। বোর্ডের বার্ষিক চুক্তিতে এখনো শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা সাক্ষর করেননি। এর কারণে এখনও বিপক্ষে সিরিজের স্কোয়াড জানায়নি শ্রীলঙ্কান বোর্ড। কুশল পেরেরার নেতৃত্বাধীন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা যদি বোর্ডের চুক্তিতে সাক্ষর না করে তাহলে ভারতের বিপক্ষে হয়তো দ্বিতীয় সারির দলই নামাতে পারে শ্রীলঙ্কা। ইংল্যান্ডে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলে শিগগিরই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা দেশে ফিরবে। আপাতত সেই অপেক্ষায় আছে লঙ্কান বোর্ড।

লঙ্কান বোর্ডের প্রধান নির্বাচক প্রমোদয়া বিক্রমসিংহের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদপত্র ডেইলি এফটি জানিয়েছে, যে ক্রিকেটাররা বোর্ডের চুক্তিতে সাক্ষর করবেন না, তাদের ভারত সিরিজে রাখা হবে না। জানা গেছে, শ্রীলঙ্কান বোর্ড ৩৯ জনের ক্রিকেটারদের একটি পুল তৈরি করেছে।

বিক্রমসিংহে বলেছেন, পুলের ক্রিকেটাররা অনুশীলনের মধ্যেই আছে। ম্যাচও খেলছে। ভারতের বিপক্ষে তারা ভালোভাবেই নির্বাচনী ভাবনায় আছে। আমরা এখনো ভারতের বিপক্ষে স্কোয়াড ঘোষণা করিনি। রবিবার শ্রীলঙ্কা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় এবং শেষ ওডিআই ম্যাচ খেলার পরে স্কোয়াড নিয়ে আলোচনা হবে।

সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গা বলেছেন, লঙ্কান ক্রিকেটকে অপমান করেছে ভারত। কিন্তু এবার ভারতের বিপক্ষেই শ্রীলঙ্কার ‘দ্বিতীয় সারির’ দল মাঠে নামানোর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে!