লাল-সবুজ খামের তৈরি জাতীয় পতাকা, গিনেস রেকর্ডের স্বীকৃতির অপেক্ষায়

একটির পর একটি লাল-সবুজ খাম সাজিয়ে বানানো হয়েছে পতাকা, যাকে বলা হয় ইনভেলপ মোজাইক ফ্ল্যাগ। হাতে বানানো লাল-সবুজ খাম দিয়ে তৈরি বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার আয়তন ২৪০ বর্গমিটার। পতাকাটির দৈর্ঘ্য ২০ মিটার ও প্রস্থ ১২ মিটার। এখন এটি সবচেয়ে বড় ইনভেলপ মোজাইক ফ্ল্যাগ হিসেবে গিনেস রেকর্ডের স্বীকৃতির অপেক্ষায়। এই উদ্যোগের শিরোনাম করা হয়েছে ‘দুর্নিবার বাংলাদেশ’। এটি ঢাকার ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের বলরুমে মেঝেতে প্রদর্শন করা হচ্ছে এই পতাকা।

উদ্যোক্তারা জানান, এটি তৈরিতে লেগেছে ১৬ হাজার খাম। ১০ হাজারের বেশি সবুজ খাম ও ৫ হাজারের বেশি লাল খাম। সময় লেগেছে ৫ ঘণ্টারও বেশি । এটি ‘আগ্রহ’ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় তৈরি করা হয়েছে।

উদ্যোক্তা বলেন, গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির অপেক্ষা। গিনেস বুকে অন্তর্ভুক্তির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে গত ২৪ জুলাই। বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস আমাদের জন্য অহংকার ও গৌরবের ।

উল্লেখ্য, গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ‘লার্জেস্ট ইনভেলপ মোজাইক (ফ্ল্যাগ)’ বিভাগে ২০১৯ সালের ১৬ ডিসেম্বর খাম দিয়ে ৬০ বর্গমিটারের বাংলাদেশের পতাকা বানিয়ে রেকর্ড করেছিলেন ঢাকার এক তরুণ।