সেমিফাইনালে পেরুকে ‘ভয়’ পাচ্ছে ব্রাজিল!

রাত পোহালেই বাংলাদেশ সময় মঙ্গরবার ভোর ৫টায় কোপার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক ব্রাজিল আর পেরু। কোপা আমেরিকার প্রথম সেমিতে আগামীকাল মঙ্গলবার (৬ জুলাই) ভোর ৫টায় পেরুর বিপক্ষে মাঠে নামবে নয় বারের কোপার চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। ম্যাচটি সরাসরি দেখাবে সনি টেন ২ চ্যানেলে।

সংবাদ সম্মেলনে ব্রাজিল কোচ জানিয়েছেন, যতটা সহজ ভাবা হচ্ছে, তত সহজ হবে না পেরুর বিপক্ষে ম্যাচটি। পেরু গত আসরের ফাইনালিস্ট। এবারও সে লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবে তারা। দুইটি ম্যাচ আলাদা এবং পরিস্থিতি-সময়ও আলাদা। পাশাপাশি এই ম্যাচের চাহিদাও অনেক উঁচু। তাই আমাদের লক্ষ্য অর্জনের জন্য তাদের চেয়ে ভালো খেলা জরুরি। কারণ পেরুও ফাইনালে যেতে চায়, তাদের লক্ষ্যও একই। তাই আমাদের সতর্ক ফুটবল খেলতে হবে।

কোচ তিতের এমন দুর্ভাবনার কারণ হতে পারে আরো দুটি কারণ। একটি কোয়ার্টার ফাইনালের খেলা অন্যটি গ্যাব্রিয়েল জেসুসের অভাব। কোয়ার্টার ফাইনালে চিলিকে হারাতে ঘাম ঝরিয়েছেন তিতের শিষ্যরা। প্রথমার্ধ ছিল গোলশূন্য। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরমিনোর বদলি হিসেবে নামেন পাকুয়েতার একমাত্র গোলে কোনোমতে উতড়ে গেছে ব্রাজিল। বাকিটা সময় নিজেদের পোস্ট সুরক্ষিত রাখতেই অতিরক্ষণাত্মক কৌশল বেছে ১-০ তে জিতে সেলেকাওরা। নেইমারদের সেই খেলা উপভোগ্য হয়নি তেমন ব্রাজিলভক্তদের কাছে।

অন্যদিকে আরেক কোয়ার্টার ফাইনালে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলেছে পেরু। দারুণ আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেছে তারা। যার ফলে প্যারাগুয়ের জালে ৩ গোল জড়িয়েছে তারা। পরে ৩-৩ সমতায় টাইব্রেকারে প্যারাগুয়ে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে পেরু। সেখানেও দুর্দান্ত ছিলেন রিকার্ডো গেরেসার শিষ্যরা। সর্বশেষ কোনো সফরকারী দল হিসেবে ১৯৭৫ সালের কোপায় ব্রাজিলকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল পেরু।

এদিকে চিলির ম্যাচে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের লালকার্ড দেখায় সেমিতে তাকে পাচ্ছে না ব্রাজিল। এমন একজন স্ট্রাইকারের অনুপস্থিতি কিছুটা হলে ভোগাবে ব্রাজিলকে।

ব্রাজিল দলের মিডফিল্ডার ফ্রেড বলেন, আমরা ফাইনালের ব্যাপারে চিন্তাও করছি না। আমরা যদি আগামীকালের ম্যাচ বাদ দিয়ে ফাইনালের কথা ভাবতে থাকি, তারা (পেরু) হয়তো আমাদের চমকে দেবে। পেরু আত্মবিশ্বাসী হয়েই খেলতে নামবে। আমাদের তাই প্রস্তুত থাকতে হবে।