৫ হাজার ইহুদীকে নাগরিকত্ব দিয়ে মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে আমিরাত

আবু ধাবি ‘বিশ্বাসঘাতক ও আপসকামী’ সরকার। সংযুক্ত আরব আমিরাত পাঁচ হাজার ইসরায়েলিকে নাগরিকত্ব দিয়ে ফিলিস্তিনি জাতি ও মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে অভিযোগ করেছে ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলন।

গত বৃহস্পতিবার ‘এমিরাটস লিকস’জানায়, গত তিন মাসে প্রায় ৫,০০০ ইসরায়েলি সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাগরিকত্ব লাভ করেছে। আরব আমিরাত বিদেশিদেরকে নাগরিকত্ব দেওয়ার বিধান রেখে আইন সংশোধন করার পর ইহুদিবাদীদেরকে এই সেবা দেওয়া হয়। এর আগে বিদেশিদেরকে নাগরিকত্ব দিত না সংযুক্ত আরব আমিরাত।

ইয়েমেনের আল-মাসিরা টিভি’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইসলামি জিহাদের মুখপাত্র তারিক সালমি বলেন, বিশেষ করে সাম্প্রতিক গাজা যুদ্ধে যখন ফিলিস্তিনি জনগণের শক্তিমত্তা এবং তেল আবিবের ‘অজেয়’ থাকার ভুয়া দাবি প্রমাণিত হয়েছে তখন ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে আরব দেশগুলোর দুর্বলতা প্রকাশ করা উচিত হবে না। দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের ব্যাপারে আরব আমিরাতসহ অন্যান্য আরব দেশকে তাদের ভুল হিসাব-নিকাশ পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানান তিনি।

বিভিন্ন সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে এমিরাটস লিক্স জানায়, পুঁজি বিনিয়োগের অজুহাতে দুবাই ও আবুধাবিতে ইসরায়েলি নাগরিকদের আনাগোনা ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে।

সূত্রগুলো বলেছে, ইসরায়েলিরা তাদের নিজস্ব নাগরিকত্ব ত্যাগ না করেই আরব আমিরাতের নাগরিকত্ব গ্রহণ করার সুযোগ লাভ করেছে। এই নাগরিকত্ব লাভের ফলে ইহুদিবাদীরা এখন অনায়াসে এবং অগ্রিম ভিসা গ্রহণ করা ছাড়াই পারস্য উপসাগর ও আরব দেশগুলো অতিক্রম করতে পারবে।