চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও বিশ্বকাপের জন্য নিলামে অংশ নিয়েছে বিসিবি

‘ক্রিকেট ইজ অ্যা জেন্টলম্যান’স গেইম’ বলে একটি কথা আছে। কিন্তু কোথাও লেখা দেখিনি বা শুনিনি যে ‘ক্রিকেট ইজ এ ফানি গেইম’। তবে অনেকেই মনে করে ক্রিকেট একটি মজার খেলা। আসলে মনে করাটাই স্বাভাবিক, কেননা ডব্লিউ জি গ্রেসের মতে এই আধুনিক ক্রিকেটটা আসলেই কয়েক’শ কোটি মানুষের বিনোদনের খোরাক যোগাচ্ছে।

নতুন খবর হচ্ছে, আইসিসির নতুন এফটিপিতে আছে বেশ কয়েকটি বৈশ্বিক আসর। এর মাঝে আছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও। বিশ্বের বড় দলগুলোর জমজমাট টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগামী আসরের আয়োজক হওয়ার জন্য এককভাবে নিলামে অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ। দুই ফরম্যাটের দুই বিশ্বকাপের জন্যও বিড করা হয়েছে, তবে যৌথভাবে।

২০২৫ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজন করতে হলে যতগুলো ভেন্যু আবশ্যক, তা বাংলাদেশে আছে। বিসিবি তাই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য এককভাবেই নিলামে অংশ নিয়েছে।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির বিডে আমরা আলাদাভাবে অংশগ্রহণ করেছি। এজন্য যে কয়টি স্টেডিয়াম দরকার তা আমাদের আছে।’

আগামী এফটিপিতে আছে দুটি ওয়ানডে ও চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তবে এককভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের ক্ষেত্রে যে শর্ত আছে, তা পূরণ করা বাংলাদেশের জন্য একটু কঠিনই বটে। বিসিবি তাই বিশ্বকাপের আয়োজক হতে চায় যৌথভাবে।

সেই লক্ষ্যে ওয়ানডে বিশ্বকাপে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার সাথে মিলে বিড করা হয়েছে। পাপন বলেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য শ্রীলঙ্কার সাথে যৌথভাবে বিড করেছি। এককভাবে আয়োজনের জন্য যে পরিমাণ স্টেডিয়াম দরকার তা আমাদের নেই, দুইটি দেশ মিলে করতে হবে। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান মিলে বিড করেছি।’