টি-টোয়েন্টিতে এমন সময় আগে কখনও আসেনি বাংলাদেশের

চলতি বছরের আগামী ১৭ অক্টোবর শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। কুড়ি ওভারের বিশ্ব আসর শেষে পাকিস্তান দলের বাংলাদেশ সফর থাকলেও সেখানে নেই কোনও টি-টোয়েন্টি। চলতি বছর বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টিতে খেলেছে ১৬ ম্যাচ, যার মধ্যে ৯ জয় পেয়েছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। আর এই জয়ের পথে প্রথমবারের মতো টানা তিনটি সিরিজ জয়ের কীর্তি গড়েছে মাহমুদউল্লাহরা।

এ বছর রয়েছে আরও বেশ কিছু টি-টোয়েন্টি, তবে সবই বিশ্বকাপে। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানের আসর বাদ দিলে সাফল্য বিবেচনায় ২০২১ সাল টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সেরা বছর হয়ে থাকবে। নিউজিল্যান্ড সফর দিয়ে শুরু হয়েছিল বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি মিশন। কিউই কন্ডিশনে তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০তে হারতে হয়।

তবে গত জুলাইতে জিম্বাবুয়ে সফরে গিয়ে ২-১-এ সিরিজ জিতে যে সাফল্য যাত্রা শুরু হয়, সেটি সমানভাবে চলেছে সদ্য শেষ হওয়া নিউজিল্যান্ড সিরিজ পর্যন্ত। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে ৪-১ ব্যবধানে হারানোর পর কিউইদের ৩-২ ব্যবধানে হারিয়েছে মাহমুদউল্লারা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ শেষ করার পর বাংলাদেশের জয়সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯টি। একপঞ্জিকা বর্ষে সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ড এটিই। এর আগে ২০০৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে সাফল্য পেয়েছিল বাংলাদেশ।

ওই বছর ১৬ ম্যাচ খেলে সাত জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। ২০১৮ সালে ১৬ ম্যাচ খেলে জয় ছিল পাঁচটি। আর এবার ৯ জয় এলো ১৬ ম্যাচে। এই সঙ্গে প্রথমবার টানা তিন সিরিজ জয়ের আনন্দে মেতেছে বাংলাদেশ।

দেশের এমন সাফল্য নিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘আমি সবসময়ই বিশ্বাস করেছি, আমরা বিশ্বাস করেছি, এই সংস্করণে আমরা ভালো দল। স্রেফ নিজেদের সামর্থ্য ও স্কিলে আস্থা রাখার বিশ্বাসটা দরকার আমাদের, যেন বাংলাদেশকে কিছু জয় এনে দিতে পারি। এবার এই ধারা (জয়ের) ধরে রাখতে পেরে আমরা খুশি।’