বাংলাদেশি ভেবে ভারতীয় যুবককে মেরে ফেলল বিএসএফ

স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় থেকে আজ পর্যন্ত বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ভারতীয় সরকারের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য। সাম্প্রতিক বাংলাদেশ সফরে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা এ সম্পর্ককে ‘সোনালি অধ্যায়’ বলেছেন।

নতুন খবর হচ্ছে, কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্তে মোহাম্মদ আলী (২২) নামে এক ভারতীয় যুবককে গুলি করে হত্যা করেছে সে দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার খেতারচর সীমান্তের আন্তর্জাতিক সীমানা ১০৫৪-১০৫৫ পিলারের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত যুবকের নাম মোহাম্মদ আলী। তিনি ভারতের আসাম রাজ্যের হাটশিংঙিমারী জেলার পুরান দিয়াড়া থানার পুরান ছাটকড়াইবাড়ির মন্ডল কান্দি গ্রামের মো. জাকির হোসেনের ছেলে। তিনি স্থানীয় এক কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র বলে জানা গেছে।

সীমান্তে খোঁজ নিয়ে জান যায়, ভারতীয় কাঁটাতারের ওপরে বাঁশের তৈরি আড়কি লাগিয়ে গরু পারাপারের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে মোহাম্মদ আলী। পরে ১৫ থেকে ২০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল মিলে অবৈধভাবে ভারতীয় গরু পার করছিল। এ সময় ভারতের দ্বীবচর বিএসএফ ক্যাম্পের টহলরত সদস্যরা ‘বাংলাদেশি গরু চোরাকারবারি’ ভেবে গুলি ছুড়ে। এতে মোহাম্মদ আলী নামের ওই ভারতীয় যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে কাঁটাতারের গেট খুলে মরদেহ উদ্ধার করে ক্যাম্পে নিয়ে যান বিএসএফের সদস্যরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, সীমান্তে বাংলাদেশি ভেবে ভারতীয় নাগরিককে গুলি করে হত্যা করেছে বলে লোকমুখে শুনেছি। তবে কী কারণে গুলি করেছে তা আমার জানা নেই।