ভয়ঙ্কর ত্রয়ী ‘এমএনএম’র খেলা দেখতে মুখিয়ে আছে ফুটবল বিশ্ব!

নিঃসন্দেহে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। ৯০ মিনিটের এই খেলায় খেলোয়াড় এবং দর্শকদের মধ্যে বেশ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আর খেলা মানেই রেকর্ড ভাঙ্গার প্রতিযোগিতা। একজন খেলোয়াড়ের রেকর্ড আরেক খেলোয়াড় ভেঙ্গে দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়বে, সৃষ্টি করবে নতুন এক ইতিহাস।

নতুন খবর হচ্ছে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আজ (১৫ সেপ্টেম্বর) রাতে বেলজিয়ান দল ক্লাব ব্রুগের বিপক্ষে পিএসজির হয়ে মাঠে নামতে পারেন বর্তমানে বিশ্বের সেরা ত্রয়ী মেসি-নেইমার-এমবাপ্পে। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য একরকম মজা করেই পিএসজি কোচ মাওরিসিও পচেত্তিনো বলেন, ‘বিশ্বের ফুটবল প্রেমিদের এমন আগ্রহ দেখে এ ত্রয়ীর খেলা একসঙ্গে দেখার জন্য আমি নিজেও মুখিয়ে আছি।’

শুধু পচেত্তিনো নয়, এ তিন ফুটবল তারকার খেলা দেখতে সমর্থকদের যেন তর সইছে না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম দেখলেই বুঝা যায় মেসি-নেইমার-এমবাপ্পের একসঙ্গে খেলা দেখার জন্য ফুটবলপ্রেমীরা কি পরিমাণ আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে। হয়তো আজই দেখা যেতে পারে এ মহেন্দ্রক্ষণ। পিএসজি কোচ পচেত্তিনো এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মেসি, নেইমার ও এমবাপ্পে একসঙ্গে। আমি সবাইকে পছন্দ করি। বিষয়টি ভাবতেই অনেক ভালো লাগছে। ওঁদের একসঙ্গে দেখতে পারলে আমার যে কী অবস্থা হবে!’

‘এমএনএম’ ত্রয়ীর আগেও কিছু ভয়ঙ্কর ত্রয়ী ইতিহাসের পাতায় নাম লেখিয়ে গেছে। রিয়াল মাদ্রিদের ‘বিবিসি’ ত্রয়ী অর্থাৎ বেল-বেনজেমা-ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ইতিহাস কে না জানে? দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এ ত্রয়ী লস ব্লাঙ্কোসদের এনে দিয়েছিল চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা। বার্সেলোনার ‘এমএসএন’ অর্থাৎ মেসি-সুয়ারেজ-নেইমার একসময় কাতালানদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পাশাপাশি এনে দিয়েছিল অসংখ্য শিরোপা। লিভারপুলের ‘এমএসএফ’ অর্থাৎ মানে-সালাহ-ফিরমিনো দলটিকে ২০১৮-১৯ মৌসুমে এনে দিয়েছিল স্বপ্নের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ।

কিন্তু পিএসজি এখন পর্যন্ত দেখা পায়নি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের। তাদের ‘এমসিএন’ অর্থাৎ, এমবাপ্পে-কাভানি-নেইমার ত্রয়ী দলকে ফাইনালে নিয়ে যেতে পারলেও শিরোপা আনতে পারেনি এখনও। আর তাই ‘এমএনএম’ ত্রয়ীর দিকেই তাকিয়ে এখন পিএসজি।