মোস্তাফিজকে শেষ ওভার পর্যন্ত খেলাটা নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেছিলাম: পরাগ

এবার আইপিএল-এর একমাত্র ম্যাচে অবিশ্বাস্যভাবে পাঞ্জাব কিংসকে ২ রানে হারিয়েছে রাজস্থান রয়েলস। ম্যাচের তখন আর মাত্র ২ ওভার বাকি। দুই ওভারে জয়ের জন্য পাঞ্জাব কিসের প্রয়োজন আর মাত্র ৮ রান। তখনো হাতে রয়েছে তাদের ৮ টি উইকেট। উইকেটে তখনও হাফ সেঞ্চুরি জুটি গড়ে অপরাজিত রয়েছেন নিকোলাস পুরান এবং এইডেন মার্করাম। তখন ১৯তম বোলিং করতে আসেন মোস্তাফিজুর রহমান।

এ সময় অনেকেই তখন মনে করছিল মুস্তাফিজের ওই ওভারে হয়তো ম্যাচে জিতে যাবে পাঞ্জাব কিংস। কারণ উইকেটে তখন ৩০ রান করে অপরাজিত রয়েছেন নিকোলাস পুরান এবং ২৪ রান করে অপরাজিত রয়েছেন এইডেন মার্করাম। কিন্তু শেষের দুই ওভারে ম্যাচের দৃশ্য পাল্টে দিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান এবং কার্তিক ত্যাগী।

ম্যাচের ১৯তম বোলিং করতে এসে প্রথম দুটি বল ডট দেন মুস্তাফিজুর রহমান। এরপর ৪ বলে দেন চারটি রান। এর মধ্যে একবার ক্যাচের সুযোগ তৈরি করেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। শেষ ওভারে জয়ের জন্য তখন পাঞ্জাবের প্রয়োজন ৪ রান। ‌হাতে তখনও ৮টি উইকেট। তখনো হয়তো কেউ চিন্তা করেনি এই ম্যাচে জয়লাভ করবে রজস্থান।

এরপর বোলিংয়ে এসে প্রথম দুই বলে এক রান দেন কার্তিক ত্যাগী। এর পরের তিন বলে তুলে নেন ২ উইকেট। শেষ বলে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল তিন রানের। শেষ বলটি ডট দিলে ২ রানে জয়লাভ করে রাজস্থান রয়েলস। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এই দুই বোলারের প্রশংসায় ভাসিয়েছেন রিয়ান পরাগ।

এদিকে মুস্তাফিজের করা ১৯তম ওভারের সময় মিড-অফে ফিল্ডিং করছিলেন পরাগ। সেই সময় মুস্তাফিজকে ওভারটা ভালো করার জন্য পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। সেইসাথে মুস্তাফিজকে খেলাটাকে শেষ হওয়া পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলেন তিনি। আর সেটি করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান।

গতকাল ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “ইনিংসের ১৯তম ওভারে আমি তখন মিড-অফে ফিল্ডিং করছিলাম। আমি তখন মুস্তাফিজকে বলেছিলাম এই ওভারে ম্যাচটি হাতছাড়া করোনা। কারণ শেষ ওভারে আমাদের আরও একটি সুযোগ রয়েছে। শেষের দুই ওভারে ৮ রানের বিনিময়ে ম্যাচে জয়লাভ করা এটা এক কথায় অবিশ্বাস্য। ওরা দুইজনই অবিশ্বাস্য বোলিং করেছে”।