মেসিকে উঠিয়ে নেওয়ার ব্যাখ্যা দিলেন কোচ

গতকালের ম্যাচ ঘড়ির কাঁটা তখন ৭৫ মিনিটে, স্কোর ১-১। লিওঁর বিপক্ষে এই পরিস্থিতিতে লিওনেল মেসিকে মাঠ থেকে তুলে নিলেন প্যারিস সেন্ট জার্মেই কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো। নামালেন আশরাফ হাকিমিকে। শেষ মুহূর্তে মাউরো ইকার্দির গোলে পিএসজি জিতলেও আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডকে বদলি উঠিয়ে নেওয়ায় প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছেন কোচ।

গতকাল রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ২-১ গোলে জিতেছে পিএসজি। গত সপ্তাহে চ্যাম্পিয়নস লিগে ক্লাব ব্রুগের সঙ্গে গোলশূন্য ড্রর পর যে ফল তাদের জন্য ছিল অপরিহার্য। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে মেসির মতো গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়কে ম্যাচ শেষ হওয়ার ১৫ মিনিট আগে তুলে নেওয়া নিয়ে। পচেত্তিনো অবশ্য আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলছেন ‘সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আছেন ম্যানেজাররা।’

কেন এমন সিদ্ধান্ত, আর্জেন্টাইন কোচের ব্যাখ্যা, ‘সবাই জানে দলে আমাদের সেরা খেলোয়াড়রা আছে। ৩৫ খেলোয়াড় নিয়ে সমৃদ্ধ স্কোয়াড আমাদের। সেখান থেকেই আমাদের খেলোয়াড় বাছাই করতে হয়। ১১ জনকে নিতে হয়, যারা শুরু করে। তারপর সিদ্ধান্ত নিতে হয় ম্যাচ চলার সময়। মাঝেমধ্যে এই বাছাইয়ের পুরস্কার পাওয়া যায়, মাঝেমধ্যে না। কিন্তু কী করতে হবে এসব সিদ্ধান্ত নিতেই আমরা বেঞ্চের সামনে দাঁড়িয়ে থাকি। ভালো হোক বা না হোক ওই সিদ্ধান্তগুলো নিতে হবে, সেটা আপনার পছন্দ হোক বা না হোক।’

এই জয়ে লিগ ওয়ানে শতভাগ সাফল্য ধরে রেখেছে পিএসজি। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মার্শেইর চেয়ে ৫ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে শীর্ষে তারা। চ্যাম্পিয়নস লিঘ গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে ব্রুগের সঙ্গে হতাশাজনক ড্রয়ের পর এই জয়ে ইতিবাচক পচেত্তিনো, ‘এটা আমাদের জন্য খুব ইতিবাচক। ব্রুগের বিপক্ষে কঠিন খেলার পর আবারও জয় পাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। লিওঁ দারুণ দল, দুর্দান্ত খেলোয়াড় আছে এবং প্রথমার্ধে তারা ভালো খেলেছে। গোল খাওয়ার পর আমাদের জাত দেখাতে হতো। দলের শক্তি দেখাতে আমাদের ভারসাম্য খুঁজে পেতে হবে, এনিয়ে আমরা কাজ চালিয়ে যাব।’