২১ বছর পর গ্রুপপর্বেই টানা দুই ম্যাচ হার মেসিবিহিন বার্সার

এবার বার্সেলোনাকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকা। যার ফলে ২১ বছর পর চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপপর্বে টানা দুই ম্যাচ হারলো কাতালান ক্লাবটি। আর চ্যাম্পিয়ন চেলসিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে য়্যুভেন্টাস। অন্যদিকে, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর শেষ মুহূর্তের গোলে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। আর ডিনামো কিয়েভকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ।

এদিকে গ্রুই ই এর ম্যাচে, ঘরের মাঠে শুরুতেই বার্সেলোনা শিবিরে আঘাত হানে বেনফিকা। তিন মিনিটে ডারউইন নুনেজের গোলে লিড নেয় পর্তুগিজ ক্লাবটি। প্রথমার্ধে আর গোল হয়নি। তবে ৬৯ মিনিটে জাও মারিওর অ্যাসিস্টে বেনফিকার ব্যবধান দ্বিগুন করেন রাফা সিলভা। ৭৮ মিনিটে ডেস্টের ভুলে পেনাল্টি পায় বেনফিকা। স্পটকিক থেকে নুনেজ গোল করলে ৩-০’র বড় হারের লজ্জা পায় বার্সেলোনা। সবচেয়ে হতাশার পুরো ম্যাচে অন টার্গেটে একটি শটও নিতে পারেনি কুম্যানের দল।

গ্রুপ এইচ এর ম্যাচে য়্যুভেন্টাসের বিপক্ষে ফেভারিট ছিলো চ্যাম্পিয়ন চেলসি। ইনজুরি জর্জরিত জুভেরা দিবালা ও মোরাতর ইনজুরিতে কোনো স্ট্রাইকার ছাড়াই একাদশে গড়ে। প্রথমার্ধে কেউ সাফল্য না পেলেও, দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই জয়সূচক গোল পায় য়্যুভেন্টাস। ফেড্রিকো কিয়েসা ৪৬ মিনিটে নাম তোলেন স্কোর শিটে। গোল শোধে মরিয়া চেলসি ম্যাচে ৭৩% শতাংশ বল পশেসন রাখলেও গোলের দেখা না পাওয়ায় জয়ীর বেশে মাঠ ছাড়ে তুরিনের ক্লাবটি।

গ্রুপ এফ এর ম্যাচে হারের শঙ্কা জেগেছিলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডেরও। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে পাকো আলকাসেরের গোলে লিড নেয় ভিয়ারিয়াল। কিন্তু ৬০ মিনিটে অ্যালেক্স টেলেসের দুর্দান্ত গোলে সমতায় ফেরে রেড ডেভিলরা। ড্রর দিকে ধাবিত হওয়া ম্যাচের মোড় ঘোরান ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ইনজুরি সময়ে গোল করে ম্যান ইউকে জয় এনে দেন ইকার ক্যাসিয়াসকে সরিয়ে এককভাবে চ্যাম্পিয়নস লিগে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলতে নামা সিআর সেভেন। যা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদোর ১৩৬তম গোল। রোনালদোর পাশাপাশি ম্যাচে ৬টি সেভ করে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন গোলরক্ষক ডি গিয়া।

এদিকে গ্রুই ই এর আরেক ম্যাচে ডিনামো কিয়েভের বিপক্ষে গোল উৎসব করেছে বায়ার্ন মিউনিখ। লেভানডোভস্কি দুটি আর সার্জ গ্যানাব্রি, লিরয় সানে, চুপ মুটিং এবার করে স্কোর শিটে নাম তুললে ৫-০ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাভারিয়ানরা।