ইতিহাস গড়ে ভারতকে ১০ উইকেটের হারের লজ্জা দিল পাকিস্তান

পাকিস্তান-ভারত খেলা মানেই টানটান উত্তেজনা। খেলার মাঠে কোন দুই হার মেনে নিতে চায়না, তবে শেষ হাসি হাঁসতে হয় যে কোন এক দলকেই।

নতুন খবর হচ্ছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে পাকিস্তান। ‌ দুবাই ভারতের বিপক্ষে আজ ১০ উইকেটে জয় লাভ করেছে বাবর আজমের দল। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ১৫১ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১০ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে পাকিস্তান। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এটি পাকিস্তানের প্রথম জয়।

টসে জিতে বোলিং করতে নেমে শুরুটা করেছিলেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। বল হাতে শুরুর দুই ওভারেই রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের উইকেট নেন। শুরুর ধাক্কার পরপরই হাসান আলী তুলে নেন সূর্যকুমার যাদবের উইকেট।

কিন্তু ব্যাট হাতে পাকিস্তানের আক্রমণের সামনে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তার ৫৭ রানের ঝকঝকে ইনিংসে শেষ পর্যন্ত লড়াকু পুঁজি পায় ভারত।

৪৫ বলে ফিফটি তুলে নেওয়ার পর কোহলি হাত খুলে খেলা শুরু করেন। কিন্তু তার ইনিংসটি বড় করতে দেননি সেই শাহীন আফ্রিদিই। স্লোয়ার বাউন্সারে পুল করতে গিয়ে টাইমিং মিস করে কোহলি উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন। ৪৯ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় সাজান ইনিংসটি।

ভারত নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও রান রেট কখনো ছয়ের নিচে নামতে দেয়নি। পাওয়ার প্লে’তে রান ৩ উইকেটে ৩৬। ১০ ওভারে রান ৬০ রান। রোহিত (০) ও রাহুল (৩) আউট হওয়ার পর যাদব ১টি করে চার ও ছক্কায় ১১ রান করেছিলেন। কিন্তু হাসান আলী তাকে প্রথম ওভারেই আউট করেন।

চতুর্থ উইকেটে কোহলিকে সঙ্গ দেন পান্ত। দুজনের ৪০ বলে ৫৩ রানের জুটিতে রানের চাকা সচল থাকে। পান্ত স্বভাবসুলভ করে ৩০ বলে ৩৯ রান করে আউট হন। এরপর জাদেজা ১৩ বলে করেন ১৩ রান। জাদেজার সঙ্গে ৪১ রানের জুটির ২৭ রান একাই করেন কোহলি।

ভারতের অধিনায়ককে ফিরিয়ে রানের চাকায় লাগাম টেনেছিলেন আফ্রিদি। কিন্তু শেষ ওভারে ১৭ রান খরচ করে নিজের বোলিং ফিগার নষ্ট করেন। ৩১ রানে ৩ উইকেট নেন বাঁহাতি পেসার। ৪৪ রানে ২ উইকেট পেয়েছেন হাসান আলী।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলতে থাকেন দুই ওপেনার মোহাম্মদ রেজওয়ান এবং বাবর আজম। ৫২ বলে ৬টি চার এবং দুটি ছক্কার হাঁকিয়ে ৬৮ রান করে অপরাজিত থাকেন বাবর আজম এবং ৫৫ বলে ৬টি চার এবং ৩টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৭৯ রান করে অপরাজিত থাকেন মহাম্মদ রেজওয়ান।