এবার চাঁদপুরে মন্দিরে হামলা-ভাংচুর

হিন্দুদের দেশ ত্যাগ মানে বাংলাদেশ থেকে ভারতে চলে যাওয়ার প্রবণতা কখনো বন্ধ হয়নি৷ যাওয়ার হার কখনো কমেছে, কখনো বেড়েছে৷ কিছু গবেষণা ও বহু পরিসংখ্যান আছে৷

নতুন খবর হচ্ছে, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজারে লক্ষ্মীনারায়ণ জিওর আখড়া মন্দিরে হামলা ও ভাংচুর এবং হামলাকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বৃহস্পতিবার জানান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে গঠিত ৫ সদস্যের এ কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যার পর মন্দিরে হামলা ও সংঘর্ষের পর রাতেই হাজীগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছিল। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তা বহাল থাকবে।

আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে পৌর এলাকায়।

বুধবার সকালে কুমিল্লায় নানুয়া দিঘীর পাড় পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে বেশ কিছু মন্দির ও মণ্ডপে হামলা হয়। পরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে শহরে বিজিবি মোতায়েন করা হয়।

এর জেরে রাতে গাজীপুর, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও মৌলভীবাজারে বেশ কিছু মন্দির ও পূজা মণ্ডপেও হামলা ও ভাঙচুর হয়। চাঁদপুরে হামলাকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে তিনজনের প্রাণহানি ঘটে।

হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বণিক বলেন, রাত ৮টার পর উপজেলার মনিনাগ এলাকা থেকে একটি মিছিল এসে লক্ষ্মীনারায়ণ জিওর আখড়ায় হামলা চালায়