পূজা উপলক্ষে যা বললেন সিএমপি কমিশনার

আশ্বিনের মাঝামাঝি-উঠিল বাজনা বাজি, পূজার সময় এলো কাছে। মহালয়ার মধ্যে দিয়ে শুরু হলো দেবীপক্ষ। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসবকে ঘিরে পূজা মণ্ডপগুলোতে সাজসাজ রব। মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরে বেড়ানো আর দেবী দর্শন করাই পূজার মূল আকর্ষণ।

নতুন খবর হচ্ছে, হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা উদযাপনে পূজামণ্ডপে মদ, জুয়া, আতশবাজি ও ডিজে পার্টি নিষিদ্ধসহ এক গুচ্ছ নির্দেশনা দিয়েছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। এছাড়া নামাজ ও আজানের সময় মণ্ডপে সাউন্ড সিস্টেম বন্ধ রাখা, সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন ও করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে এসব নির্দেশনা দেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।

পূজা উদযাপনে সিএমপির দেওয়া অন্যান্য নির্দেশনাগুলো হলো-মণ্ডপগুলোর প্রবেশমুখে পুরুষ ও নারীর জন্য পৃথকভাবে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও থার্মাল স্ক্যানার রাখা, মাস্ক ছাড়া মণ্ডপে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা, মণ্ডপের চারদিকে বা উপরের অংশ উন্মুক্ত রাখা, মণ্ডপের ভেতরে অধিক লোক অবস্থান না করা, প্রসাদ তৈরি ও বিতরণ সীমিত পর্যায়ে করা, প্রতিমা তৈরির সময় নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা, মণ্ডপের প্রবেশমুখে ভিড় নিয়ন্ত্রণ ও দর্শনার্থী আগমনে নিরুৎসাহিত করা, হ্যান্ড-হেল্ড মেটাল ডিটেক্টর, আর্চওয়ে রাখা, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা করা, পূজা কমিটি নিয়ে কোনো দ্বন্দ্ব থাকলে নিজেরা অথবা মহানগর পূজা কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে মীমাংসা করা এবং নারীরা যেন ইভটিজিংয়ের শিকার না হয় সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া।