পূজামণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় ঢাবিতে মৌন প্রতিবাদ

দেবী দুর্গার বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় পার্বণ শারদীয় দুর্গোৎসব। মহাসপ্তমীতে শুরু হয় দেবীদর্শন, দেবীর পায়ে ভক্তদের অঞ্জলি প্রদান ও প্রসাদ গ্রহণ।

নতুন খবর হচ্ছে, কুমিল্লা, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বান্দরবানসহ সারা দেশে শারদীয় দুর্গোৎসবের মণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের প্রতিবাদে মৌন প্রতিবাদ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বিকাল ৫টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে এই মৌন প্রতিবাদ জানান শিক্ষার্থীরা। এতে বিভিন্ন বর্ষের প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

মৌন প্রতিবাদে অংশ নেওয়া আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিব সিরাজী বলেন, ‘বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করে। আমরা যুগ যুগ ধরে একসঙ্গে বসবাস করে আসছি। দুঃখজনকভাবে এবার দেশের কিছু জায়গায় শারদীয় দুর্গোৎসবে প্রতিমা ভাঙচুরের মতো ঘটনা ঘটেছে। এ জন্য আমরা মৌন প্রতিবাদের আয়োজন করেছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কখনোই সাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসী নয়। আমরা প্রত্যাশা করি, অচিরেই যারা এসব কর্মকাণ্ডে লিপ্ত, তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।’