ফ্লাইওভারের পিলারে ফাটল দেখা যায়নি, এটা গুজব: সিডিএ

চট্টগ্রামের ফ্লাইওভারের পিলারে ফাটল দেখা দেয়নি। এটি ঢালাইকালীন চার্টারে ব্যবহৃত ফোম সরে যাওয়ার দাগ বলে উল্লেখ করেছেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) নির্বাহী প্রকৌশলী এবং এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের পরিচালক মাহফুজুর রহমান। বিষয়টি স্রেফ গুজব বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে মাহফুজুর রহমান বলেন, পিলারে কখনো দুদিকে ফাটল দেখা দেয় না। চারদিকে ফাটল দেখা দেয়। অন্যান্য দিকেও তার চাপ পড়ে। ফ্লাইওভারেও ফাটল দেখা যেতো। আসলে ফাটলের কোনো ঘটনা ঘটেনি। বিষয়টি স্রেফ গুজব। তবু আজ র‌্যাম্পটি নির্মাণের সঙ্গে জড়িত পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ডিপিএমের বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীরা সরেজমিনে ফ্লাইওভার পরিদর্শন করবেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন।

তিনি আরো বলেন, র‌্যাম্পটি ফ্লাইওভারের মূল ডিজাইনের পরে নির্মাণ করা হয়েছে। এটিতে সর্বোচ্চ ৩০-৪০ টন ওজনের গাড়ি চলাচল করার কথা বলা হয়েছিল। এজন্য র‌্যাম্পটিতে যেন ভারী গাড়ি উঠতে না পারে সেজন্য ব্যারিয়ার দেওয়া হয়েছিল। ওই ব্যারিয়ার খুলে নেয়া হয়েছে। এতে ১০০ টন পণ্যবাহী গাড়িও ওই ফ্লাইওভারের উপর দিয়ে চলাচল করছে। ফলে কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এদিকে জরুরি ভিত্তিতে ব্যারিয়ার স্থাপনের কথা উল্লেখ করে নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, ওই র‌্যাম্পটি শুধুমাত্র ছোট গাড়ি চলাচলের জন্য নির্দিষ্ট করে দেওয়া প্রয়োজন। তবে আজ বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীরা পরিদর্শন করে বিষয়টি দেখবেন এবং সিটি কর্পোরেশনকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এর আগে, ফাটলের বিষয়টি নজরে এলে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নতুন চান্দগাঁও আবাসিক অংশে ব্যারিকেড দিয়ে ফ্লাইওভারে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় পুলিশ। ১০৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ফ্লাইওভারটি নির্মাণ করে সিডিএ। ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর এটির গার্ডার ধসে ১৪ জন নিহত হন।