বেনাপোলে মাদরাসাছাত্রসহ আটক ১৩

বাংলাদেশে অবরোধ ও হরতালের বিভিন্ন নাশকতার খবর নতুন কিছু নয়। তবে বেশ কয়েকদিন ধরে নাশকতা বেড়েই চলছে।

জানা যায়, বেনাপোল থেকে নাশকতার আশঙ্কায় সন্দেহভাজন মাদ্রাসাছাত্রসহ ১৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে বেনাপোল এমইউ সিনিয়র মাদরাসার গেট থেকে ও বেনাপোল চেকপোস্ট প্রাইভেট স্টার্নের সামনে থেকে পোর্ট থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ পৃথক অভিযানে তাদের আটক করে।

বেনাপোল চেকপোস্ট প্রাইভেট স্টার্নের সামনে থেকে আটকরা হলেন- পৌরসভার সাদিপুর গ্রামের হাসানুজ্জামান ও সুমন হোসেন। মাদরাসা ছাত্ররা হলেন খুলনার বানরগাতি দারুল কোরান সিনিয়র কামিল মাদরাসার শিক্ষার্থী।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে বেনাপোল এমইউ সিনিয়র মাদরাসার সামনে ১১ জন ছাত্র সন্দেহ জনকভাবে অবস্থান করছিল। তারা খুলনা থেকে ট্রেনে করে বেনাপোল আসে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। তারা খুলনার বানরগাতি দারুল কোরান সিনিয়র কামিল মাদরাসার ছাত্র।

অন্যদিকে বেনাপোল চেকপোস্ট উজ্জ্বল ট্যুরিজম নামে একটি অফিসের সামনে থেকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ দুই যুবককে আটক করে।

এদিকে দুপুরে জুমার নামাজ শেষে যাতে কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য বেনাপোল কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে বিজিবি ও পুলিশকে অবস্থান করতে দেখা যায়। এছাড়া বিজিবি ও পুলিশের পাশাপাশি বেনাপোল পৌর ছাত্রলীগ, যুবলীগের সদস্যদের অবস্থান করতে দেখা যায়।

পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান জানান, খুলনা থেকে এই ছাত্ররা দল বেধে কি উদ্দেশে বেনাপোল এসেছিল তা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাদের কাছে আল্লামা দেলোয়ার হোসেন সাঈদির একটি পোস্টার পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।