মসজিদে মাইকে আজান দেয়ায় ইমামকে মারধর

এবার মসজিদে মাইকে আজান দেওয়াকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে ভারতের এক গ্রামে। সেখানে মারধরের ঘটনা ঘটলে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আজ মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) উত্তরপ্রদেশের বস্তি জেলার মুন্ডিয়ারি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

একটি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে পার্স টুডে বলছে, মসজিদে আজান দেয়া নিয়ে প্রথমে পিন্টু সিং নামের এক যুবক আপত্তি তোলে। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ওই যুবক লাঠি নিয়ে মসজিদের ইমামসহ চারজনকে মারধর করে, শুরু হয় দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনা।

এর পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। সেই সাথে ফের উত্তেজনা এড়াতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, আহতরা সামান্য আঘাত পেয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, মসজিদে বসানো মাইক থেকে জোহরের আজান নিয়ে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। ইমাম তৌফিক আহমেদ মসজিদে জোহরের আজান দেয়ার পরে গ্রামের মধুবন ওরফে পিন্টু সিং ইমামকে মাইক থেকে আজান দেয়া যাবে না বলে তাকে মারধর করে। রুবিনা (২২), রুখসার (২৮) এবং নাসির (৬০) যারা উদ্ধার করতে এসেছিলেন, তারাও মারধরের ফলে আহত হন।