সুযোগ হাতছাড়া করলেন নাসির

বাংলাদেশ ক্রিকেটের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র নাসির। এই পর্যন্ত অনেক রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন এই তারকা ক্রিকেটার।

নতুন খবর হচ্ছে, ব্যাটিংয়ে নামা ১০ ব্যাটসম্যানের আট জনই গেলেন দুই অঙ্কে। কিন্তু কেউ পারলেন না ৪০ পার হতে। গড়ে উঠল না তেমন কোনো জুটি। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট নিয়ে রংপুরকে চাপে ফেলে দিলেন খুলনার দুই বোলার মেহেদী হাসান মিরাজ ও আল আমিন হোসেন।

দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের প্রধান টুর্নামেন্ট জাতীয় ক্রিকেট লিগের উদ্বোধনী দিনে মন্থর ব্যাটিংয়ে ৮ উইকেটে ২২৬ রান করেছে রংপুর।

সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ৩৩ ওভারে ৮১ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে খুলনার সেরা বোলার মিরাজ। পেসার আল আমিন ৩ উইকেট নেন ৪৫ রানে।

প্রথম স্তরের ম্যাচে রোববার টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা দলটি শুরুতেই উইকেট হারায়। মাইশুকুর রহমানকে বিদায় করেন আল আমিন হোসেন।

জাহিদ জাভেদের সঙ্গে মাহমুদুল হাসানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দেয় রংপুর। জমে যাওয়া জুটি ভাঙেন মিরাজ। এই অফ স্পিনারের বলে মাহমুদুলের ক্যাচ মুঠোয় জমান মিঠুন।

চারটি চারে ১২৩ বলে ৪০ রান করা জাভেদকে থামান আল আমিন। এই পেসার পরে নেন তানবীর হায়দারের উইকেট।

বাঁহাতি অলরাউন্ডার সোহরাওয়ার্দী শুভকে বিদায় করার পর নাঈম ইসলামকে থামান মিরাজ। নিজের মতো করেই খেলছিলেন নাঈম। সাবধানী ব্যাটিংয়ে ১০৫ বলে দুই চারে ৩০ রান করা রংপুর অধিনায়ক ধরা পড়েন ইমরুল কায়েসের হাতে।

নিজেকে খুঁজে ফেরা নাসির উইকেট থিতু হয়ে গিয়েছিলেন। বড় ইনিংসের আশাও জাগিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি জিয়াউর রহমানের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান। শেষ বেলায় আলাউদ্দিন বাবুকে ফিরিয়ে নিজের চতুর্থ উইকেট নেন মিরাজ।

কিপার-ব্যাটসম্যান ধীমান ঘোষ অপরাজিত আছেন ২২ রানে। তার সঙ্গী রবিউল হক অপরাজিত ১০ রানে।