আমরা তো স্পিনও ভালো খেলতে পারি না: হাবিবুল বাশার

দেশের পেস বোলিংয়ে বাংলাদেশের ব্যাটারদের দুর্বলতা নিয়ে আলোচনা করতে গেলে অনেকেই বলে থাকেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা স্পিনে অভিজ্ঞ। কিন্তু বাস্তব চিত্র বলছে, কোথাও স্পিনাররা বাড়তি সুবিধা পেলে সেখানেও মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে না বাংলাদেশের ব্যাটিং ইউনিট। সেই বাস্তবতা ফুটে উঠল নির্বাচক হাবিবুল বাশারের কণ্ঠেও।

হাবিবুল বাশার জানান, ঘরোয়া ক্রিকেটে শুধু ব্যাটিং বান্ধব উইকেটের দিক থেকে মনোযোগ কমিয়ে এখন পেস ও স্পিন দুই বিভাগের উপযোগী করে তোলে উইকেট বানানো হচ্ছে, যাতে কাটানো যায় ব্যাটিংয়ের দুর্বলতা।

এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে বাশার বলেন, ‘উইকেট নিয়ে রিকমেন্ডেশন সবসময় থাকে। অনেক আগে লো বাউন্স আর একটু টার্ন নিয়ে প্রথম শ্রেণির খেলা হত। গত ৩-৪ বছর ধরে আস্তে আস্তে পরিবর্তন হচ্ছে। আমরা পেসের পাশাপাশি স্পিন ট্র্যাকেও খেলতে চাই। স্পিন খেলা একটা শিল্প। সবসময় ফ্ল্যাট উইকেট চাই না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতি চাই। এখন অনেক দলই তিন পেসার নিয়ে খেলে। উইকেটে এখন বোলারদের সহায়তা থাকছে। সবসময় পেস উইকেট হতে হবে এমন নয়। আমরা তো স্পিনটাও এত ভালো খেলতে পারি না, যখন উইকেটে বল স্পিন করে। তাই সেরকম উইকেটেও খেলতে হবে। আমরা আগে লো বাউন্স উইকেটে খেলতাম। সেটা স্পিন উইকেট ছিল না।’

বাশার আরও বলেন, ‘এরপর আমরা ফ্ল্যাট উইকেটে খেলেছি, এখন বোলিং বান্ধব উইকেট হচ্ছে। আশা করছি ভবিষ্যতেও এটা ধরে রাখতে পারব।’

সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘এখন ড্র কম হচ্ছে, বেশিরভাগ ম্যাচে ফলাফল আসছে। রান হচ্ছে, বোলাররাও উইকেট পাচ্ছে। পরিবর্তন কিন্তু হচ্ছে। হয়ত এখন বোঝা যাচ্ছে না। কিন্তু যেভাবে আমরা যাচ্ছি, এটার প্রভাব ২-৩ বছর পর দেখা যাবে। প্রক্রিয়াটা শুরু হয়ে গেছে। ভবিষ্যতে আমরা এর প্রভাব দেখতে পারব।’