ইরানের নারী ফুটবল দলে পুরুষ খেলোয়াড়, কঠিন অভিযোগে অবাক বিশ্ব!

এবার ফুটবল মাঠে ঘটেছে এক অবাক কাণ্ড। নারীদের দলে খেলানো হয়েছে এক পুরুষ খেলোয়াড়কে। ইরানের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের আঙুল তুলেছে জর্ডান নারী ফুটবল দল। ইরানের নারী ফুটবল দলে পুরুষ খেলোয়াড় রয়েছে বলে অভিযোগের খবর প্রকাশ করেছে বৃটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল।

এদিকে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে এএফসি অঞ্চলের এশিয়ান কাপ ফুটবলের বাছাইয়ে ইরানের কাছে ৪-২ গোলে হারের পর গত মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) এ অভিযোগ তুলে জর্ডান।

উজবেকিস্তানের বুনিয়দকর স্টেডিয়ামে গত ২৫ সেপ্টেম্বর দুদলের মধ্যকার এই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে মূল ম্যাচ গোলশূন্য ড্র হয়। এরপর পেনাল্টি শুট আউটে গড়ায় ম্যাচ। যেখানে জর্ডানের দুটি কঠিন শট ফিরিয়ে দেন ইরানের গোলরক্ষক জোহরেহ কৌদেই। তাকেই পুরুষ বলে দাবি করছে জর্ডান। এ বিষয়ে এএফসির কাছে জোহরেহর লিঙ্গ নিশ্চিত করার জন্য তদন্তের দাবিও করেছে তারা।

পাল্টা জবাবে ইরান দলের নির্বাচক মারিয়াম ইরান্দোস্ত এই অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। তার মতে, হারের ক্ষত ঢাকতেই এমন আলোচনা সামনে নিয়ে এসেছে জর্ডান।

জর্ডান ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট প্রিন্স আলি বিন আল হোসেন এক টুইটে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরুর দাবি জানান। বিষয়টিকে তিনি খুবই ‘সিরিয়াস ইস্যু’ হিসেবে অভিহিত করেছেন। আর সে কারণেই উপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে ফিফাকে অনুরোধ করেন তিনি। শুধু এবারই না, কৌদেইর বিরুদ্ধে এর আগেও এমন অভিযোগ উঠেছে। তবে কোনোবারই এবারের মতো আলোচনা এত ডালপালা ছড়ায়নি।

এদিকে সূত্র বলছে, জর্ডানের বিপক্ষে ওই জয়ের মাধ্যমেই প্রথমবারের মতো এশিয়ান কাপের টিকিট পেয়েছে ইরান। আর তাতে দুটি পেনাল্টি ঠেকিয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন ৩২ বছর বয়সী গোলরক্ষক কৌদেই।