এক বছরের সবচেয়ে বেশি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হারের লজ্জ্বায় বিশ্বরেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ

পাকিস্তান- বাংলাদেশের খেলা মানেই টানটান উত্তেজনা। খেলার মাঠে কোন দলই হার মেনে নিতে চায়না। তবে শেষ হাসি হাঁসতে হয় যে কোন এক দলকেই।

নতুন খবর হচ্ছে, বিশ্বরেকর্ড গড়া যেকোনো দলের জন্যই স্বস্তির। কিন্তু সেই বিশ্বরেকর্ড যদি হারের দিক থেকে হয়, তখন অনুভূতি হয় ঠিক উল্টো। এমনই বিব্রতকর এক রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দল।

রেকর্ডটি এক বছরে সবচেয়ে বেশি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হারের। এতদিন এই দুঃস্মৃতির রেকর্ড ছিল শ্রীলঙ্কার। পাকিস্তানের বিপক্ষে হোম সিরিজের প্রথম ম্যাচে টাইগাররা ছাড়িয়ে যায় লঙ্কানদের। দ্বিতীয় ম্যাচে হারার পর সেই লজ্জার বিশ্বরেকর্ডকে টাইগাররা আরও এক ধাপ ওপরে নিয়েছে।

এ বছর বাংলাদেশ মোট ১৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে হেরেছে। ২০১৬ সালে শ্রীলঙ্কা হেরেছিল ১৩টি ম্যাচে। সে বছর লঙ্কানরা খেলেছিলই মোটে ১৬ ম্যাচ। বাংলাদেশ ১৫তম হার দেখেছে বছরে নিজেদের ২৭তম ম্যাচে।

এই রেকর্ডে তৃতীয় স্থানে আছে পাকিস্তান। ২০১০ সালে ১৮ ম্যাচ খেলে ২০০৯ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা হেরেছিল ১২ ম্যাচে। এ বছর অস্ট্রেলিয়া হেরেছে ১২ ম্যাচে, খেলেছে মোট ২২ ম্যাচ। যদিও অজিরা এ বছরই জিতেছে নিজেদের ইতিহাসের প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

পঞ্চম স্থানেও আছে শ্রীলঙ্কা। সেটাও এ বছরের পরিসংখ্যানে। এ বছর ২০টি ম্যাচ খেলা লঙ্কানরা হেরেছে ১২টি ম্যাচে। ষষ্ঠ স্থানে আবারও বাংলাদেশ। ২০১৯ সালে ১৬ ম্যাচ খেলে ১১টি ম্যাচেই হেরেছিল টাইগাররা।

শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে বেশি হারের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাওয়ার দিনে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল অবশ্য আরও একটি বিশ্বরেকর্ড গড়েছে। এক বছরে সবচেয়ে বেশি (২৭টি) টি-টোয়েন্টি খেলার রেকর্ড এখন বাংলাদেশের।