প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নিলেন তাসকিন আহমেদ

আবু ধাবিতে টস হেরে ব্যাটিং পায় বাংলাদেশ। সাকিব না থাকায় একাদশে জায়গা হয় শামীমের। এমনকি এই ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হয় মুস্তাফিজকে। তার পরিবর্তে একাদশে ফিরেন বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ। তবে ব্যাটিং পেয়েও দুই ওপেনার থেকে ভালো কিছুর ইঙ্গিত পাওয়া গেলেও রাবাদার ওভারে ১১ বলে ৯ রানের ইনিংস খেলেন নাঈম শেখ।

পরের বলেই এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়ে ‘গোল্ডেন ডাক’ মেরে সাজঘরে ফিরেন সৌম্য। ২২ রানে দুই উইকেট হারালে দলের বিপদে হয়তো এই ম্যাচে হাল ধরার বলে ধারণা করা হয়েছিল। তবে ব্যাট হাতে এই ম্যাচেও ব্যর্থ হন মুশফিক। রাবাদার বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ২৪ রানে তিন উইকেটের পতন হলে খাপছাড়া মনে হয় বাংলাদেশকে।

দলীয় ৩৪ রানে সাজঘরে ফিরেন মাহমুদউল্লাহ। পরের ওভারের প্রথম বলেই কোন রান না করে সাজঘরে ফিরেন আফিফও। একপাশ থেকে যখন উইকেট পড়ছিল অন্যপাশ থেকে আগলে রেখেছিলেন লিটন। যদিও বেশ ধীরগতির ইনিংস খেলেন তিনি। তার ধীর গতির ইনিংসের ইতি টানেন স্পিনার শামসি।

বিশ্বকাপের অভিষেক ম্যাচে ব্যাট হাতে বিশেষ কিছু করতে পারেননি শামীম হোসেনও। দল যখন ১০০ এর নিচে অল-আউট হওয়ার শঙ্কায় পড়ে তখন ২৭ রানের ছোট ক্যামিও ইনিংস খেলেন শেখ মেহেদী। তবে তার ক্যামিও ইনিংসেও দলীয় রান ১০০ হয়নি বাংলাদেশের।

৮৪ রানেই অলআউট হয় বাংলাদেশ। প্রোটিয়াদের হয়ে তিনটি উইকেট লাভ করেন আনরিখ নরকিয়া ও কাগিসো রাবাদা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নিলেন তাসকিন আহমেদ।