বাংলাদেশ নিয়ে মানুষ এখন গর্ব করে: তোফায়েল

একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে শেখ হাসিনার অবদান আজ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। ইতোমধ্যে তিনি গণতন্ত্র, স্বাস্থ্য ও শিশু মৃত্যুর হার হ্রাস, তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার, দারিদ্র্য বিমোচন, উন্নয়ন এবং দেশে দেশে জাতিতে জাতিতে সৌভ্রাতৃত্ব, সম্প্রীতি ও শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন খেতাব আর সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।

নতুন খবর হচ্ছে, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিয়েছিলেন, তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ দেশকে বিশ্বে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) জাতীয় সংসদে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিশেষ আলোচনায় অংশ নিয়ে তোফায়েল আহমেদ এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রস্তাবটি উপস্থাপন করেন। এ সময় অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

তোফায়েল আহমেদ বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ করে বলেন, বঙ্গবন্ধুকে জাতিসংঘের অধিবেশনে ইংরেজিতে বক্তব্য দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন না, আমি আমার মাতৃভাষায় বক্তৃতা করব। তার বক্তব্য শেষে ১০ মিনিট ধরে করতালি চলে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছিলাম, তিনি বাংলাদশের স্বাধীনতা দিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, বঙ্গবন্ধু একজন বিশ্বনেতা ছিলেন। তিনি সেখানেই গেছেন, সেখানেই বিশেষ সম্মান পেয়েছেন। আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বে বাংলাদেশকে, বাঙালি জাতিকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। তিনি গ্রামকে শহরে পরিণত করেছেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলা হয়েছিল। বলা হয়েছিল বাংলাদেশ যদি উন্নতি করতে পারে তাহলে বিশ্বের কোনো দেশ অনুন্নত থাকবে না। আজ বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। দেশের মানুষ আজ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে। আজ বাংলাদেশকে নিয়ে মানুষ গর্ববোধ করে। মুক্তিযুদ্ধ করে বাংলাদেশ যে পাকিস্তান থেকে স্বাধীনতা অর্জন করে সেই পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ আজ সব দিক দিয়ে এগিয়ে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এটা সম্ভব হয়েছে এবং বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে।