বিয়ের সাড়ে ৩ মাসেই জন্ম নিল সন্তান, নবজাতককে ধানক্ষেতে নিক্ষেপ!

‘মা’ একটি ছোট্ট শব্দ। এই শব্দের মধ্যেই লুকিয়ে আছে পৃথিবীর সব মায়া, মমতা, অকৃত্রিম স্নেহ, আদর, নিঃস্বার্থ ভালোবাসার সব সুখের কথা। চাওয়া-পাওয়ার এই পৃথিবীতে বাবা-মায়ের ভালোবাসার সঙ্গে কোনো কিছুর তুলনা চলে না।

নতুন খবর হচ্ছে, ধানক্ষেত থেকে কুড়িয়ে পাওয়া নবজাতকের মা-বাবার সন্ধান পেয়েছে নেত্রকোনার কেন্দুয়া থানার পুলিশ। শিশুটিকে অমানবিকভাবে ফেলে রাখা ও নিষ্ঠুরতার দায়ে থানায় মামলা দায়েরের পর বাবা-মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশের এসআই শফিউল আলম বাদী হয়ে শিশুর মা, বাবা, দাদী, নানীকে আসামি করে মোট চারজনের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের শিশু আইনের ৭০ ধারায় মামলাটি রুজু হয়। শিশুর বাবা আল মোমেন (২৪) ও মা জান্নাত আক্তার শিলাকে (১৯) গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহনেওয়াজ।

ওসি জানান, আরও দুই আসামি মোমেনের মা শারমিন আক্তার (৫০) ও শিলার মা শিল্পী আক্তারকে (৪০) গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গত ৭ নভেম্বর শিশুটি জন্ম নিলে তারা শিশুটিকে ধানক্ষেতে ফেলে দেয়।

এর আগে গত জুলাই মাসের ২২ তারিখ গুগ গ্রামের মো. আব্দুল হকের ছেলে মোমেনের সাথে জালালপুর গ্রামের খোকন মিয়ার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের আগেই তাদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে জানা গেছে। কিন্তু বিয়ের বয়স সাড়ে তিন মাস হতেই তারা বাবা-মা হয়ে পড়েন। লোকলজ্জায় জন্মের পরপরই শিশুটিকে হাসপাতাল থেকে বের করে ধানক্ষেতে ফেলে দেয়া হয়।

বিকালে আদমপুর এলাকায় খান এন্ড পন্ডিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে খেলাধূলা করার সময় শিশুরা পাশের একটি ধানক্ষেত থেকে ওই নবজাতকটি উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে সমাজ সেবার উদ্যোগে কর্তব্যরত চিকিৎকরা নবজাতকটিকে চিকিৎসা ও সেবা দিয়ে হাসপাতালেই রাখেন।