ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫ লাশ ফেলার হুমকি দিয়ে পালালো ছাত্রলীগ নেতা, খুঁজছে পুলিশ

নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবেই। পরাজয়ের শক্ত ভিত্তিই তৈরী করে দেবে কাঙ্খিত বিজয় অর্জনের প্রেরণা। অনেক প্রার্থী বলে থাকেন ফলাফল মেনে নেওয়ার মানসিকতা আছে। তবে বাস্তবতা ভিন্ন।

নতুন খবর হচ্ছে, প্রশাসন কাজ করুক বা না করুক, নৌকার বিপক্ষে একটা ভোট কাটলে ৫টা লাশ পড়বে- বলে জনসভায় প্রকাশ্যে হুমকি দেয়া নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল আলমকে খুঁজছে পুলিশ। বিষয়টি শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) রাতে নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মুহাম্মদ শাহীন।

জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফিরোজ মিয়ার বিরুদ্ধে যদি একটা ভোটও যদি কাটা হয়, তাহলে পাঁচটা লাশ পড়বে বলে- হুমকি দিয়েছেন ওই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম। তার এ বক্তব্য ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই চলছে তোলপাড়।

এদিকে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল আলমকে স্থানীয়রা ‘দাঙ্গাবাজ আশরাফুল’ নামে জানে। স্থানীয় সংর্ঘষের ঘটনাগুলোতে তাকে প্রথম সারিতেই দেখা যায় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এলাকার স্থানীয় ফজলু মিয়া জানান, আমাদের গ্রামে মারামারি হলে আশরাফুলকে সবার আগে দেখা যায়। আর কাসেম আলী নামের একজন জানান, আশরাফুল চিহিৃত দাঙ্গাবাজ, তাকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা উচিত।

লাশ ফেলার বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম বলেন, আমাদের সভা চলাকালে পাশের চিত্রী গ্রামে নৌকার বিপক্ষে ভোট কাটা হবে বলে খবর আসে। আসলে বয়স অল্প তো, আবেগে বলে ফেলেছি। এটা নিয়ে নিউজ কইরেন না।