ভারতীয় বোর্ড প্রধান থেকে বিসিবিকে শিক্ষা নিতে বললেন মাশরাফি

চলতি টি-২০ বিশ্বকাপে টানা চার ম্যাচে অসহায় আত্মসমর্পণের জ্বলুনি একটু ও কমেনি বাংলাদেশের। বরং, এক ম্যাচ আগেই আসর থেকে ছিটকে পড়ায় প্রচন্ড সমালোচনার মুখে রাসেল ডোমিঙ্গোর দল। শুধু হেরেছে বলেই নয়, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চলতি আসরে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং অ্যাপ্রোচও নিয়েও অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। টাইগারদের সীমাহীন ব্যর্থতার দায় ক্রিকেটার ও বোর্ড ম্যানেজমেন্ট এর মধ্যে সমন্বয়হীনতাকেও দায়ী করছেন কেউ কেউ।

এসব নিয়েই কথা বলেছেন বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। গতকাল এক সাক্ষাৎকারে চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ব্যর্থতায় ঘুরপাক খাওয়া নিয়ে বেশ খোলামেলা কথা বলেছেন মাশরাফি। সেখানেই, এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) থেকে শিক্ষা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে সফলতম অধিনায়ক।

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার ও বিসিবির মধ্যে সমন্বয়হীনতার কোন অভাব আছে কিনা এমন প্রশ্ন করা হলে মাশরাফি বলেন, “সেটাই…। বাইরের কে কী বললো, সেদিকে নজর না দিয়ে বোর্ড এবং দলের একতাবদ্ধ থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ভারতের দিকেই তাকান। এত কিছুর পরও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড কিন্তু চুপ। বোর্ডের শীর্ষ মহল থেকে শুরু করে কেউ দলের বাজে পারফরম্যান্স নিয়ে বাইরে কিছু বলছে না। সংবাদমাধ্যম, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং সমর্থকেরা অনেক কিছু বললেও ক্রিকেট বোর্ড থেকে কোনও কথা বাইরে আসছে না। কারণ, তারা জানে তাদের পরবর্তী করণীয় কী।”

তিনি আরও বলেন, “বোর্ডের এসব সমালোচনা দলের ওপর চাপ তৈরি করেছে এবং খেলোয়াড়েরাও চাপ নিয়েছে। ক্রিকেটাররা কিন্তু দুঃসময়ে ক্রিকেট বোর্ডের দিকেই তাকিয়ে থাকে। ক্রিকেট বোর্ডের আরও বেশি ধৈর্যশীল হওয়া উচিত ছিল। কোনো খেলোয়াড় ভালো না খেললে টুর্নামেন্টের পর তো তাকে বাদ দেওয়ার সুযোগ আছেই! যতক্ষণ দলটা টুর্নামেন্টে আছে, ততক্ষণ কথা না বলাই উচিত। কারণ, ক্রিকেট বোর্ডই এই দলটাকে বিশ্বকাপে পাঠিয়েছে। কেউ খারাপ খেললেও তো তাকে আর বদলানোর সুযোগ নেই। ”

মাশরাফি বলেন, “কাজেই আপনাকে ধৈর্য্য ধরতেই হবে। আর যদি আপনার সেই ধৈর্য্য না থাকে, তাহলে আপনার আরও আগেই চিন্তা করা উচিত ছিল এটা আপনার সেরা দল কি না। কোচ, অধিনায়ক, নির্বাচক এবং বোর্ড যখন একমত হবে এটাই তাদের সেরা দল, তখন কিন্তু সেই দলের কাছ থেকে কিছু পাওয়ার জন্য ধৈর্য্য ধরতে হয়।”