ভাড়া সমন্বয় না হওয়ায় রাজশাহীতে সব ধরনের পরিবহন বন্ধের ঘোষণা

দেশে তেলের দাম বৃদ্ধিতে ভাড়া সমন্বয় না হওয়ায় রাজশাহীতে আগামীকাল শুক্রবার থেকে বাস, ট্রাকসহ সব ধরনের পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে এই ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় সভাপতি ও রাজশাহী সড়ক পরিবহণ গ্রুপেরর যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাফকাত মঞ্জুর বিপ্লব জানান, তেলের দাম লিটারে ১৫ টাকা বেড়েছে। এ অবস্থায় বর্তমান ভাড়ার সঙ্গে তেলের দামের কোনো সমন্বয় হচ্ছে না। ভাড়া না বাড়ালে পরিবহন মালিকদের লোকসানের মুখে পড়তে হবে। তেলের দামের সঙ্গে ভাড়ার সমন্বয় দাবিতে শুক্রবার থেকে রাজশাহী বিভাগের সব রুটে বাস, ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকবে।

এদিকে ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্য এক লাফে ১৫ টাকা করে বাড়িয়েছেন সরকার। গতকাল বুধবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে জ্বালানী তেলের বর্ধিত মূল্য কার্যকর হবে। দাম বাড়ার ফলে ডিজেল ও কেরোসিনের নতুন মূল্য হচ্ছে লিটার প্রতি ৮০ টাকা। গতকাল বুধবার (৩ নভেম্বর) বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মীর মোহাম্মদ আসলাম উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য ক্রমবর্ধমান। এ ঊর্ধ্বগতির কারণে পার্শ্ববর্তীসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ জ্বালানি তেলের মূল্য নিয়মিত সমন্বয় করছে। গত ১ নভেম্বর ভারতে ডিজেলের মূল্য ছিল প্রতি লিটারে ১২৪.৪১ টাকা বা ১০১.৫৬ রুপি। অথচ বাংলাদেশে ডিজেলের মূল্য প্রতি লিটারে ৬৫ টাকা অর্থাৎ লিটার প্রতি ৫৯.৪১ টাকা কম। তাই জ্বালানী তেলের মূল্য প্রতি লিটারে ১৫ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বর্তমানে যা দর, তাতে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) ডিজেল লিটারপ্রতি ১৩ টাকা ১ পয়সা ও ফার্নেস অয়েল ৬ টাকা ২১ পয়সা করে কমে বিক্রি করছে। এতে প্রতিদিন প্রায় ২০ কোটি টাকা লোকসান দিতে হচ্ছে। গত অক্টোবরে বিপিসির লোকসান হয়েছে প্রায় ৭২৭ কোটি টাকা।