মেয়র জাহাঙ্গীরকে আ’লীগ থেকে বহিষ্কার করায় টঙ্গী‌তে আনন্দ-উল্লাস

আওয়ামী লীগ থেকে আজীবন বহিষ্কার হয়েছেন দলটির গাজীপুর মহানগর সাধারণ সম্পাদক ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি কটূক্তি করে দল থেকে কারণ দর্শানো এ নেতাকে দলের পদ থেকে বহিষ্কারের পাশাপাশি তার প্রাথমিক সদস্যপদও বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম‌কে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করায় টঙ্গীতে আনন্দ-উল্লাস করেছেন দলটির নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার বিকেল থেকেই টঙ্গীর দলীয় কার্যালয়ে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা। পুরো বিকেলজুড়েই ছিল টানটান উত্তেজনা। সন্ধ্যায় জাহাঙ্গীরকে বহিষ্কার করা হয়েছে শুনেই তারা আনন্দে ফেটে পড়েন।

টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে শুরু হয় আনন্দ-উল্লাস। আতশবাজি আর বিভিন্ন স্লোগানে মুখরিত ছিল পুরো কার্যালয়।

টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল হক বলেন, দলের হাইকমান্ড থেকে এমন সিদ্ধান্ত আসায় পুরো গাজীপুরবাসী কলঙ্কমুক্ত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে যতদিন পর্যন্ত আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, ততদিন পর্যন্ত গাজীপুরের মানুষের হৃদয়ের রক্তক্ষরণ বন্ধ হবে না।

আওয়ামী লীগ থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয় মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি কটূক্তি করে দল থেকে কারণ দর্শানো এ নেতাকে দলের পদ থেকে বহিষ্কারের পাশাপাশি তার প্রাথমিক সদস্যপদও বাতিল করা হয়। একইসঙ্গে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়।

শুক্রবার গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক থেকে জাহাঙ্গীরকে আজীবন বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।