রাজধানীর বেইলি রোড অবরোধ করেছে ভিকারুন্নিসার ছাত্রীরা

“মৃত্যু” এক নির্মম, কঠিন বাস্তবতার নাম। মৃত্যু এমন এক মেহমান, যে দরজায় এসে দাড়িয়ে গেলে তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা দুনিয়ার কারো নেই! মৃত্যু যেকোন বয়সের, যেকোন মানুষের সামনে, যেকোন সময়ে উপস্থিত হতে পারে!

নতুন খবর হচ্ছে, নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় বেইলি রোড অবরোধ করেছে। বৃহস্পতিবার বেইলি রোড থেকে কাকরালগামী রাস্তা অবরোধ করে এমন ঘটছে প্রশাসনের নিকট জবাব চাইছে শিক্ষার্থী। এসময় তাদের হাতে অসংখ্য দাবি, প্রশ্ন সম্বলিত প্ল্যাকার্ড দেখা যাচ্ছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি)-এর একটি ময়লা গাড়ি চালাচ্ছিলেন একজন সুইপার। সেই গাড়ির ধাক্কায় গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন।

এদিকে, ওই ঘটনায় বিচারের দাবিতে বেইলি রোডে অবস্থান নেওয়ায় এসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ওই ‘গাড়ির চালক’ রাসেলকে (২৬) প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে পল্টন থানার ওসি সালাহ উদ্দিন মিয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গ্রেপ্তার রাসেল গাড়িটির মূল চালক নয়। এ ধরনের ভারী গাড়ি চালানোর তেমন অভিজ্ঞতাও তার নেই।’

ঘটনার প্রতিবাদে নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা দুপুর ২টার দিকে কলেজের সামনে, মতিঝিল শাপলা চত্বর ও গুলিস্তান এলাকায় অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে। তারা নাঈমের মৃত্যুকে হত্যা দাবি করে চালকের ফাঁসি দাবি করে। শিক্ষার্থীদের হাতে ছিল প্ল্যাকার্ড। অনেকের বুকে, পিঠে লেখা ছিল, ‘আমি বাঁচতে চাই’।