রাতভর র‌্যাগিংয়ের শিকার হলেন রাবি শিক্ষার্থী

মেরুদন্ডহীন বানুষকে যেমন একতাল মাংসপিন্ড ছাড়া অন্য কিছু কল্পনা করা যায় না, তেমনি শিক্ষা থেকে বঞ্চিত জাতিকেও জাত হিসেবে কল্পনা করা যায় না। তবে আছে মুদ্রার উল্টা পিঠও।

নতুন খবর হচ্ছে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সামি এম সাজিদ নামে এক ছাত্র রাতভর বিভাগের সিনিয়র শিক্ষার্থীদের দ্বারা র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে শহীদ শামসুজ্জোহা হলের ছাদে এই র‌্যাগিংয়ের ঘটনা ঘটে। সাজিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের ছাত্র।

বিভাগের সিনিয়র ১০ থেকে ১২ জন শিক্ষার্থী তাকে রাতভর জোহা হলের ছাদে র‌্যাগিং করেছে বলে তিনি তাদের ব্যাচের ম্যাসেঞ্জার গ্রুপে জানিয়েছেন। র‌্যাগিংয়ে তাকে লাথি ঘুষি ও মারধর করা হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টার থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বিভাগের শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন সাজিদ।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা হলেন, নাট্যকলা বিভাগের আব্দুল্লাহ্ আল মাসুদ (কিবরিয়া), তপু, রুবেল প্রমুখ। বাকিদের নাম জানা যায়নি।
আব্দুল্লাহ আল মাসুদ র‌্যাগিংয়ের বিষয়ে অস্বীকার করে বলেন, গতরাতে জোহা হলের ছাদে বিভাগের বড়ভাই ও প্রথম বর্ষের বিভিন্ন বিভাগের কয়েকজন ছাত্র ছিলেন। সাজিদকে কোন ধরনের নির্যাতন করা হয়নি।

এদিকে সাজিদের একাধিক বন্ধু জানিয়েছেন, সাজিদের প্রতি বিভাগের বড় ভাইয়েরা ঈর্ষাকাতর হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।

নাট্যকলা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আমিরুজ্জামান বলেন, আমি যতটুকু শুনেছি বিভাগের বেশিকিছু সিনিয়র শিক্ষার্থী সাজিদকে রাতভর শারীরিক নির্যাতন করেছে। মানিসকভাবেও তাকে বেশ হ্যারেজ করা হয়েছে। তবে যারা করেছে তাদের সবার নাম আমাদের হাতে এখনো আসেনি। বিষয়টি পুরোপুরি জানার পর আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।