স্ত্রী ও শ্যালিকা অন্তঃসত্ত্বা, কারাগারে আলম

বাংলাদেশে গত এক সপ্তাহে বেশ কয়েকটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে৷ বাদ যায়নি প্রতিবন্ধী কিংবা ছয় বছরের শিশুও৷ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দলবেঁধে ধর্ষণ করা হয়েছে এসব নারী ও শিশুকে৷

নতুন খবর হচ্ছে, ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলায় স্ত্রীর ৪ মাস পর শ্যালিকা অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনায় আলম মিয়া (৩০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৫ নভেম্বর) বিকেলে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তাকে তোলা হলে বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) রাত পৌনে ১১টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি উপজেলার ফুলপুর ইউনিয়নের সদর ইউনিয়নের নয়াগাঁও প্রকাশ নগুয়া গ্রামের মৃত আহমাদ আলীর ছেলে আলম মিয়া (৩০)। তিনি পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্র জানায়, বড় বোনকে বিয়ের পর থেকেই আলমের কুদৃষ্টি পড়ে তার শ্যালিকার ওপর। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দিতেন আলম। প্রায় ৪ মাস আগে ভুক্তভোগী প্রাইভেট পড়তে কলেজের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হলে অপহরণ করে আলম। পরে বিষয়টি ভুক্তভোগীর পরিবার জানতে পেরে তার পরিবারের সঙ্গে যোগযোগ করলে মেয়েকে ফেরত দেবে জানায়। কিন্তু ৪ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও মেয়েকে ফেরত দেয়নি। লোক মারফত জানতে পারে শ্যালিকাকেও বিয়ে করেছে আলম এবং তারা দুই বোনই অন্তঃসত্ত্বা। এমতাবস্তায় ফুলপুর থানায় মামলা দায়েরের পর আলমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।