৭৪ বছর পর দেশে ‘সুষ্ঠু ভোট’ দেখলেন নুর আলী

নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবেই। পরাজয়ের শক্ত ভিত্তিই তৈরী করে দেবে কাঙ্খিত বিজয় অর্জনের প্রেরণা। অনেক প্রার্থী বলে থাকেন ফলাফল মেনে নেওয়ার মানসিকতা আছে। তবে বাস্তবতা ভিন্ন।

নতুন খবর হচ্ছে, ‘আমার যতদূর মনে পড়ে ১১ বছর বয়সে একবার সুষ্ঠু ভোট দেখেছিলাম। সেবার দলে দলে ভোটকেন্দ্রে যাচ্ছিল মানুষ। কোনো রকম হাঙ্গামা বা মারামারি ছিল না। ৮৫ বছর বয়সে এসে আবার আজ সুষ্ঠু ভোট দেখলাম। এমন ভোট না হলে মানুষ খুশি হয় না। এবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিতে পেরে আমি খুশি।’

এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে কালীগঞ্জ উপজেলার ষাইটবাড়িয়া হুক্কুলহুদা আলিম মাদরাসা কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা বৃদ্ধ নুর আলী।

রোববার (২৮ নভেম্বর) ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও কোটচাঁদপুরে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। সকাল থেকে শীত উপেক্ষা করে ভোটকেন্দ্রে আসতে থাকেন ভোটাররা। তবে নারী ভোটারদের সংখ্যা ছিল চোখে পড়ার মতো। এ দুই উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের ১৫৫ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

কালীগঞ্জ উপজেলার মালিয়াট ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল রাঢ়িপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ছয় মাসের সন্তান কোলে নিয়ে জীবনের প্রথম ভোট দিতে এসেছিলেন গৃহবধূ তানজিলা খাতুন। ভোট দিয়ে বের হয়ে জানান, জীবনের প্রথম ভোট দিতে পেরে তিনি খুশি।