কেউ ভালো করলে তারা আটকাতে মরিয়া হয়ে যায়: শাকিব

এবার ঈদে শাকিব খানের সিনেমা নেয়ার জন্য হলগুলোর মধ্যে কাড়াকাড়ি শুরু হয়ে যায়। শাকিব খানের সিনেমা চালানো মানেই পয়সা উশুল হয়ে লাভের মুখ দেখা। প্রত্যন্ত অঞ্চলের সিনেমা হলের মালিকরা এমনটাই বলে থাকেন। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি। ঈদে ৮ সিনেমা মুক্তি পেলেও সারাদেশে শাকিব খানের ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’-ই ১০০ সিনেমা হল দখল করে রেখেছে।

সম্প্রতি সিনেমাটি নিয়ে একটি গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ছবির নায়ক শাকিব খান। সেখানে ছবিটি নিয়ে অনেক প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। লিডার-আমিই বাংলাদেশ এই ছবিটি দর্শক টানার কারণ হিসেবে শাকিব বলেন, উৎসবের ছবি উৎসবের মতো হওয়া লাগে। সিনেমায় সব একশতে একশ হতে হয়। তাহলেই তার প্রতি সবার আগ্রহ জাগে। এই ছবির গল্প ভালো।

প্রতিবাদ, সাধারণ মানুষের মধ্যে জাগরণ, অনিয়ম আর সামাজিক সচেতনতার গল্প বলা হয়েছে এতে। ছবির দুটি গান বেশ সাড়া ফেলেছে। ভালো গান কিন্তু দর্শকের কাছে সিনেমার বিজ্ঞাপন। আর আমাকে যারা ভালোবাসেন, তারা গত এক বছরে আমার নতুন ছবি দেখতে পাননি। তাদের মধ্যে একটা আগ্রহ ছিল। সব মিলিয়েই হয়তো দর্শক ছবিটির প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

কোনো ছবি ভালো চললে বা কেউ ভালো করলে তারা তাদের আটকাতে মরিয়া হয়ে যায় উল্লেখ করে শাকিব খান বলেন, ওই পক্ষটা সব সময় ছিল, হয়তো আগামীতেও থাকবে। শুধু আমার ছবির বেলায় না, কোনো ছবি ভালো চললে বা কেউ ভালো করলে তারা তাদের আটকাতে মরিয়া হয়ে যায়। মূলত তারা দেশের সিনেমার শত্রু।

তবে দর্শকের ভালোবাসা যার বা যাদের পক্ষে আছে, তাদের আটকে রাখার সাধ্য কারও নেই। কত চেষ্টাই তো করল, ‘লিডার– আমিই বাংলাদেশ’ কে কি আটকে রাখতে পারল? এদের দর্শকরা চিনে ফেলেছে। ‘লিডার: আমিই বাংলাদেশ’ সিনেমাটিতে শাকিব খান ছাড়াও অভিনয় করেছেন শবনম বুবলি, মিশা সওদাগর, শহীদুজ্জামান সেলিম, মাসুম বাশার, মিলি বাশার, প্রীতি, রিমু রেজা খন্দকার, লুৎফুর রহমান খান সীমান্ত।