সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী জেলা প্রতিনিধিঃ নরসিংদীর বেলাব উপজেলার সল্লাবাদ ইউনিয়নের উপভূমি সহকারী কর্মকর্তা শান্তিলাল বাবুর বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দূর্নীতির অভিযোগ পত্রদাখিল।

আজ বৃহস্পতিবার সল্লাবাদ ভূমি অফিসের সম্মুখে এলাকার জনতা মিলে একটি বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করে। এসময় মানব বন্ধনে এই দূর্নীতিবাজ হিসেবে খ্যাত শান্তিলাল বাবুর শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে ও ঘন্টাব্যাপী এই কর্মসূচী পালন করা হয়।

এদিকে একই এলাকার বাসিন্দা জসিম, আলফাছ মিয়া, মিলন, জলিল, খলিল, মোঃ শফিকুল ইসলাম (বাহার), ফয়েজ, রহমান, আকাশ, মোঃ অনিক মিয়া, মোঃ আকাশ, মোঃ হাসান মিয়া সহ এলাকার লোকজন লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে বলেন যে, বাড়ীর পাশে থাকা গাছ কাটলেও দিতে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকাও খারিজ বাবদ দিতে হয় বিশ হাজার থেকে প্রায় ত্রিশ হাজার টাকা।

তাই আমরা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অবগত করলে কোন সূরাহা না পেয়ে আজকে এই মানব বন্ধনের কর্মসূচী নিয়েছি। এই শান্তিলাল বাবুর ক্ষমতার অপব্যবহার করে মোটা অঙ্কের অর্থ বাণিজ্য সহ বিভিন্ন হয়রানী মূলক কাজ করে আসছে। তাই আমরা নরসিংদী জেলা প্রশাসকের নিকট একটি লিখিত দরখাস্ত দাখিল করি।

এদিকে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মিলন সংবাদ কর্মীকে জানান, আমার খারিজ করার কথা বলে ষাট হাজার টাকা নিয়েছে ও আমার দোকান থেকে সে দুই জোড়াজোতা নিয়েও টাকা দেয়নি এবং এই টাকা খুঁজলে আমার স্ত্রীকে বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। তাই আমরা আদালতে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিগত সময় ধরে এই শান্তিলাল বাবু মানুষদের হয়রানী সহ বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করে মোটা অঙ্কের অর্থ বাণিজ্য করে আসছে। তাই উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ বিষয়টি আমলে নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।

সম্প্রীতি সময় ধরে কৃষকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ বাণিজ্য সহ এমনকি বাড়ীর পাশে কাটা গাছ অফিসে এনেও প্রায় বিশ হাজার টাকার মতো আত্মসাৎ করেছে বলে একটি সূত্র জানায়।

অফিস পিয়ন গণমাধ্যমকর্মীর ক্যামেরার সামনে কথা না বললেও গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওতে পাওয়া যায় যে, শান্তিলাল বাবু প্রতিটি গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে বলে সত্যতা মেলে এই ফুটেজে।

অফিস পিয়নকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি জানান, আমার স্যার প্রতিটি গ্রাহকের কাছ থেকে নিয়েছে অর্থ। অপরদিকে বেলাব উপজেলায় গত ২৯ শে জানুয়ারী রোজ মঙ্গলবার দুপুর ১ টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে বিষয়টি অবগত করলে তাৎক্ষনিক উপজেলা ভূমি কর্মকর্তাকে বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন।